সর্বশেষ সংবাদ

x


সবচেয়ে বেশি ভরসা যাদের ওপর করেছি তারাই আমাকে হতাশ করেছেন – প্রধানমন্ত্রী

শনিবার, ২৯ ফেব্রুয়ারি ২০২০ | ৮:১৯ অপরাহ্ণ | 174 বার

সবচেয়ে বেশি ভরসা যাদের ওপর করেছি তারাই আমাকে হতাশ করেছেন – প্রধানমন্ত্রী
শুভেচ্ছা বিনিময়কালে আওয়ামী লীগের সভাপতি হিসেবে দায়িত্বপালন করতে গিয়ে বিভিন্ন সময় কষ্টের কথাগুলো তৃণমূল নেতাদের কাছে তুলে ধরেন তিনি।

আওয়ামী লীগের সভাপতি প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনা সূচনা বক্তব্যে বলেছেন, ১৯৭৫ এর ঘটনার পরে আবার আওয়ামী লীগের ওপর যে আঘাত আসলো- তখন এটাই ধারনা করেছিল যে আওয়ামী লীগ আর কখনো ক্ষমতায় যেতে পারবে না। এটাই ছিল সকলের পরিকল্পনা।

৮১ সালে বিদেশে থাকা অবস্থায় আওয়ামী লীগ সভাপতি নির্বাচিত হওয়া এব পরে দেশে ফিরে আসার কথা উল্লেখ করে তিনি বলেন, ‘যাই হোক আমাকে নিয়ে আসা হয়। আমি চেষ্টা করেছি সংগঠন গোছাতে। আপনাদের মনে আছে এই সংগঠন গোছাতে কম কষ্ট করতে হয়নি।’

‘সবচেয়ে দুঃখজনক হলো আমি ৮১ সালে আসলাম, ৮২ সালে একবার পার্টি ভাঙলো। এই ভাঙাটা আমার জন্য খুব ক্ষতিকর ছিল।’

শেখ হাসিনা বলেন, ‘আমার দুঃখ লাগে যে যাদের ওপর সবচেয়ে বেশি ভরসা করেছি, দেশের বাইরে থাকতে যারা আমার সঙ্গে সবসময় যোগাযোগ করেছেন, আমি বাইরে থাকতে, ইন্ডিয়াতে থাকতে বা লন্ডনে থাকতে, যে তাদের সঙ্গে কাজ করবো তারাই আমাকে হতাশ করেছেন।’

‘১৯৭৯ সালে মুক্তি পাওয়ার পর, সবাই আওয়ামী লীগের নেতারা যখন মুক্তি পেলো। ৮০ সালে লন্ডনে আমার সঙ্গে দেখা করেছে… আর ৭৯ সাল থেকে ইন্ডিয়াতে যখন আমার সঙ্গে যোগাযোগ হয়। তখন সব সময় আমাকে জিজ্ঞেস করতো তখন আমি সব সময় যার কথা বলে দিতাম, তিনি যাতে দলটা চালাতে পারেন তার কিছু ব্যবস্থাও আমি করে দিয়েছিলাম। যাদের যাদের জন্য করে দিয়েছি আমি ফিরে আসার পর তারাই আমার সঙ্গে বিট্রে করে চলে গিয়েছে।

‘এটা হচ্ছে আমাদের দুর্ভাগ্য। সব কিছু গুছিয়ে দিলাম, তখন আওয়ামী লীগের যারাই নেতা ছিলেন সবাই আমাদের কাছে জিজ্ঞেস করতেন। আমরা কাকে নিয়ে কাজ করবো, এত গ্রুপিং এর মধ্যে কোথায় যাবো।

১৯৮১ সালে আওয়ামী লীগের সভাপতি হিসেবে দায়িত্বগহণের পর দলের ভেতরে-বাইরের অসহযোগিতা, দলে গ্রুপিং-ভাঙনসহ অজানা অনেক কথা তৃণমূল নেতাদের কাছে তুলে ধরে শেখ হাসিনা বলেছেন, ‘আপনাদের মনে আছে এই সংগঠন গোছাতে কম কষ্ট করতে হয়নি।’

১৯৭৫’র পর ক্ষমতায় আসতে আওয়ামী লীগকে ২১ বছর অপেক্ষার কারণ তুলে ধরে তিনি আরও বলেন, “হয়তো ৮০’র দশকেই আওয়ামী লীগ সরকার গঠন করতে পারতো, নির্বাচন করে জয়ী হতে পারতাম।”

এদিকে ২০০৮ সালে বিপুল বিজয় নিশ্চিতে পূর্ব প্রস্তুতির কথা তুলে ধরে আওয়ামী লীগ সভাপতি বলেন, ‘২০০১ সালে হারার পর কোন কোন কেন্দ্রে আমরা হেরেছি তার একটা হিসাব করে আমাদের যত প্রার্থী ছিল- জেতা আর হারা না, যত প্রার্থী ছিল তাদের সঙ্গে বসি। দিনের পর দিন বসি। ইউনিয়ন নেতাদের নিয়ে এসে দশটা প্রশ্ন দিয়ে, প্রশ্নপত্র নিয়ে সায়েন্টিফিকালি প্রস্তুতি নেই। যার ফলটা পেয়েছি ২০০৮ সালে।’

প্রসঙ্গত গত (২২ ডিসেম্বর) রাতে গণভবনে একুশতম জাতীয় সম্মেলনে পুনরায় আওয়ামী লীগ সভাপতি নির্বাচিত হওয়ায় শেখ হাসিনাকে শুভেচ্ছা জানান বিভিন্ন পর্যায়ের তৃণমূল নেতারা। শুভেচ্ছা বিনিময়কালে আওয়ামী লীগের সভাপতি হিসেবে দায়িত্বপালন করতে গিয়ে বিভিন্ন সময় কষ্টের কথাগুলো তৃণমূল নেতাদের কাছে তুলে ধরেন তিনি।

আর্কাইভ

সোম মঙ্গল বুধ বৃহ শুক্র শনি রবি
 
১০১১১২১৩
১৪১৫১৬১৭১৮১৯২০
২১২২২৩২৪২৫২৬২৭
২৮২৯৩০  

Development by: webnewsdesign.com