সর্বশেষ সংবাদ

x


বাল্যবিবাহ,যৌতুক,ইভটিজিং,মাদক,সন্ত্রাস ও জঙ্গিবাদ বিরোধী

সচেতনতামূলক সভায় ঢাকা জেলা প্রশাসক (ডিসি) শহীদুল ইসলাম

শনিবার, ২৮ আগস্ট ২০২১ | ৭:৫৭ অপরাহ্ণ | 26 বার

সচেতনতামূলক সভায় ঢাকা জেলা প্রশাসক (ডিসি) শহীদুল ইসলাম
সচেতনতামূলক সভায় বক্তব‌্য রাখছেন ঢাকা জেলা প্রশাসক (ডিসি) শহীদুল ইসলাম

নবাবগঞ্জ উপজেলা প্রশাসনের আয়োজনে আব্দুল ওয়াছেক মিলনায়তনে সকাল ১১টায় ঢাকা নবাবগঞ্জ উপজেলার মসজিদ সমূহের ইমাম,মুয়াজ্জিনগণের সাথে বাল্যবিবাহ,যৌতুক,ইভটিজিং,মাদক,সন্ত্রাস ও জঙ্গিবাদ বিরোধী সচেতনতামূলক সভা অনুষ্ঠিত হয় ।

সচেতনতামূলক সভায় প্রধান অতিথি হিসেবে উপস্থিত থেকে বাল্যবিবাহ, যৌতুক, মাদক, সন্ত্রাস ও জঙ্গিবাদ সম্পর্কে বিস্তারিত আলোচনায় বক্তব্য রাখেন ঢাকা জেলা প্রশাসক ও বিজ্ঞ জেলা ম্যাজিস্ট্রেট মো.শহীদুল ইসলাম।

প্রধান অতিথির বক্তবে ঢাকার ডিসি শহীদুল ইসলাম ইমামদের ভূমিকা তুলে ধরে । তিনি বলেন ইমামগণ হলো সমাজের দর্পণ, তাদের কথাগুলো মানুষ মনোযোগ দিয়ে শুনেন।

ইমামগণ নামাজ পরার আগে ও পরে মাদক সন্ত্রাস জঙ্গিবাদ এই বিষয়গুলো তুলে ধরলে সমাজের বিভিন্ন মানুষের মধ্যে ধর্মীয় ও নৈতিকতা তৈরি হবে, সমাজে বিশৃঙ্খলা কমে আসবে।

ইমামগণ তাদের বয়ানে এই নৈতিক অবক্ষয় গুলো নিয়ে প্রতিনিয়ত আলোচনা করলে মানুষ নিজে, নিজে থেকেই অনুতপ্ত ও সচেতন হবে। তাই বিষয়গুলো নিয়ে ইমামগণের জোরালো ভূমিকা রাখা দরকার।

এসময় বিশেষ অতিথি হিসেবে উপস্থিত ছিলেন নবাবগঞ্জ উপজেলা আওয়ামী লীগের সাবেক সভাপতি ও নবাবগঞ্জ উপজেলা পরিষদ চেয়ারম্যান নাসির উদ্দিন আহমেদ ঝিলু।

বিশেষ অতিথি নাসির উদ্দিন ঝিলু বলেন, ইমামগণ যদি তাদের খুদবা ও বয়ানের আগে ইসলাম ধর্মের তাৎপর্য ও নৈতিক অবক্ষয় গুলো নিয়ে বিস্তারিত আলোচনা করেন তাহলে সেই আলোচনা থেকে মানুষ অবশ্যই উপকৃত হবে, ভালোর পথে ফিরে আসবে। কারন ইমামদের কাছে বেশির ভাগ মানুষ কোন না কোনভাবে তাদের কাছেই যান ও দোয়ার দরখাস্ত চান, সে সময় যদি ইমামগণ তারা সমাজের চিত্র তুলে ধরে মানুষের নৈতিক অবক্ষয় ও মানুষের জন্য কি কি করণীয় আর কি কি করণীয় না তা যদি উনারা তুলে ধরেন তাহলে মানুষগুলো খারাপ পথ থেকে আলোর পথে ফিরে আসবে। ভালোর পথে চলবে।

সচেতনতামূলক সভায় নবাবগঞ্জ উপজেলা নির্বাহী কর্মকর্তা (ইউএনও) এইচ‌ এম সালাউদ্দীন মনজুর সভাপতিত্বে অন্যান্যদের মধ্যে উপস্থিত ছিলেন নবাবগঞ্জ উপজেলা সহকারি কমিশনার (ভূমি) অরুন কৃষ্ণ পাল, নবাবগঞ্জ থানার ভারপ্রাপ্ত কর্মকর্তা অফিসার ইনচার্জ ওসি সিরাজুল ইসলাম শেখ পিপিএম,বাহ্রা ইউপি চেয়ারম্যান ও উপজেলা আওয়ামী লীগের যুগ্ন আহ্বায়ক এডভোকেট ড. মো.সাফিল উদ্দিন মিয়া, নবাবগঞ্জ উপজেলা প্রেস ক্লাবের সভাপতি ও কলাকোপা ইউপি চেয়ারম্যান হাজী মো.ইব্রাহিম খলিল, সাধারণ সম্পাদক জহিরুল ইসলাম,আগলা ইউপি চেয়ারম্যান আবেদ হোসেন, গালিমপুর ইউপি চেয়ারম্যান তপন মোল্লা, যন্ত্রাইল ইউপি চেয়ারম্যান নন্দ নাল সিং,কৈলাইল ইউপি চেয়ারম্যান পান্নু মিয়া, বান্দুরা ইউপি চেয়ারম্যান হিল্লাল মিয়া, শিকারীপাড়া ইউপি চেয়ারম্যান বীর মুক্তিযোদ্ধা আলিমুর রহমান পিয়ারা, বক্সনগর ইউপি চেয়ারম্যান বীর মুক্তিযোদ্ধা আব্দুল ওয়াদুদ মিয়া,নবাবগঞ্জ উপজেলা স্বাস্থ্য কমপ্লেক্সের স্বাস্থ্য ও পরিবার পরিকল্পনা কর্মকর্তা ডা.মো.শহিদুল ইসলাম, মেডিকেল অফিসার রোগ নিয়ন্ত্রণ ডা. হরগোবিন্দ সরকার অনুপ উপস্থিত ছিলেন।

সচেতনতামূলক সভা শেষে নবাবগঞ্জ উপজেলা নির্বাহী অফিসারের কার্যালয়ে আগত দর্শনার্থীদের জন্য বঙ্গবন্ধু ও মুক্তিযোদ্ধা কর্ণার উদ্বোধন, স্থানীয় জনপ্রতিনিধিদের সাথে মতবিনিময় ও নবাবগঞ্জ উপজেলার দিঘীরপাড় কমিউনিটি ক্লিনিক পরিদর্শন করে বিদায় নেন ঢাকা জেলা প্রশাসক ও বিজ্ঞ জেলা ম্যাজিস্ট্রেট মো.শহীদুল ইসলাম।

আর্কাইভ

সোম মঙ্গল বুধ বৃহ শুক্র শনি রবি
 
১০১১১২
১৩১৪১৫১৬১৭১৮১৯
২০২১২২২৩২৪২৫২৬
২৭২৮২৯৩০  

Development by: webnewsdesign.com