সর্বশেষ সংবাদ

x


অসহায় গৃহহীনের পাকা বাড়ি পাওয়ার অপেক্ষা ফুরালো,,

রানীশংকৈলে ৩০ জন অসহায় গৃহহীনের পাকা বাড়ি পাওয়ার অপেক্ষা ফুরালো,,

শনিবার, ২৩ জানুয়ারি ২০২১ | ৩:১৫ অপরাহ্ণ | 43 বার

রানীশংকৈলে ৩০ জন অসহায় গৃহহীনের পাকা বাড়ি পাওয়ার অপেক্ষা ফুরালো,,
রানীশংকৈলে ৩০ জন অসহায় গৃহহীনের পাকা বাড়ি পাওয়ার অপেক্ষা ফুরালো,,

জাতির জনক বঙ্গবন্ধুর শেখ মুজিবুর রহমানের জন্মশতবর্ষ উপলক্ষে মাননীয় প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনা প্রতিঙ্গাবদ্ধ করে ছিলেন যে বাংলাশের কোন মানুষ গৃহহীন থাকবে না প্রতি জনকেই আশ্রয় করে দিব তারই প্রতিফলন হিসেবে শনিবার ২৩ জানুয়ারি সকাল সাড়ে ১০ টায় প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনা গন ভবন থেকে এক ভিডিও কনফারেন্স এর মাধ্যমে সাড়া দেশের ৬৪ জেলা উপজেলায় প্রথম ধাপে ৬৬ হাজার ১শত ৮৯ টি পাকা বাড়ি সহ জমির কাগজ পত্র উপকার ভোগিদের মাঝে হস্তান্তরের উদ্ভোধন করেন। সাড়া দেশের ন্যায় ঠাকুরগাঁওয়ের রানীশংকৈল উপজেলা হলরুমে ৭০ জন উপকার ভোগির মধ্যে ৩০ জন উপস্তিত ছিলেন পরে উপজেলা নির্বাহী অফিসার প্রধানমন্ত্রীর নির্দেশে প্রতিজন উপকার ভোগির মাঝে ঘরের ও জমির কাগজপত্র হাতে তুলে দেন। অনুষ্ঠানে উপস্তিত ছিলেন রানীশংকৈল উপজেলা চেয়ারম্যান শাহরিয়ার আজম মুন্না, নির্বাহী অফিসার সোহেল সুলতান জুলকার নাইন কবির, সহকারী ভুমি কমিশনার প্রীতম সাহা, উপজেলা আওয়ামী লীগের সভাপতি ও সাবেক উপজেলা চেয়ারম্যান অধ্যক্ষ সইদুল হক,উপজেলা ভাইস চেয়ারম্যান সোহেল রানা, মহিলা ভাইস চেয়ারম্যান শেফালী বেগম, উপজেলা স্বাস্থ্য ও পঃপঃ কর্মকর্তা ডাঃ আব্দুস চৌধুরী,কৃষি কর্মকর্তা ও কৃষিদিব সঞ্জয় দেব নাথ,থানা অফিসার ইনর্চাজ এস এম জাহিদ ইকবাল,প্রেসক্লাব সভাপতি ফারুক আহমেদ সরকার, উপজেলার বিভিন্ন দপ্তরের কর্মকর্তা, ইউনিয়ন পরিষদের চেয়ারম্যান ও স্থানীয় সাংবাদিক গণ উপস্তিত ছিলেন। উপজেলা নির্বাহী কর্মকর্তা বলেন আমরা ৭০টি পাকা বাড়ি প্রধানমন্ত্রীর মাধ্যমে উদ্ভোধন করা হয়।কিন্তু আমারা এখন ৩০ জন অসহায় মানুষের মাঝে চাবি ও ঘরের কাগজ পত্র বুঝে দিচ্ছি আর বাকি ৪০ টি বাড়ির কাজ প্রকিয়াধীন আছে এগুলো আমরা খুব তারাতাড়ি বুঝে দিতে পারবো ইনশাআল্লাহ। প্রধানমন্ত্রী বলেন আমদের আরো ১ লক্ষ বাড়ির কাজ আরাম্ভ করার প্রস্তুতি চলছে। উল্লেখ যে প্রতিটি বাড়ির জন্য দুটি করে ঘর একটি রান্না ঘর,একটি পাকা টয়লেট,পাশে বারান্দা সহ সুপেয় পানি পান করার টিউবওয়েল দেওয়া হয়েছে। এ সময় হোসেন গাঁও ইউনিয়নের উপকার ভুমিহীন ভোগি পুতুল চন্দ্র রায় বলেন আমার এর আগে ভাঙ্গাচুরা একটি বাড়ি ছিল এখন আমি নতুন বাড়িতে অনেক সুখে থাকতে পারবো আমি প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনা কে অনেক ধন্যবাদ জানাই, একই ইউনিয়নের উপকার ভোগি ভুমি হীন কিশোরী মহন রায় বলেন আমি কোন দিন ও পাকা ঘরে থাকতে পারতাম না যদি প্রধানমন্ত্রী আমাকে এই বাড়িটি না দিত তাই আমি ঈশ্বরের কাছে দোয়া করব যেন প্রধানমন্ত্রী অনেক দিন বেঁচে থাকে।

আর্কাইভ

সোম মঙ্গল বুধ বৃহ শুক্র শনি রবি
 
১০১১১২১৩১৪১৫১৬
১৭১৮১৯২০২১২২২৩
২৪২৫২৬২৭২৮২৯৩০
৩১  
কর্মহীন ও অসহায়দের মাঝে ইফতার সামগ্রী বিতরণ করেন ঢাকা মহানগর দক্ষিণ ছাত্রলীগের সহ-সম্পাদক অপু

Development by: webnewsdesign.com