সর্বশেষ সংবাদ

x


উপজেলা স্বাস্থ্য কমপ্লেক্সটি রমরমাট ভাবে ভাড়ায় চলছে ঠিকাদারিদের দিয়ে

রমরমাট ভাবে ভাড়ায় চলছে ঠিকাদারি উপজেলা স্বাস্থ্য কমপ্লেক্স

শুক্রবার, ১৩ নভেম্বর ২০২০ | ৩:২৪ অপরাহ্ণ | 98 বার

রমরমাট ভাবে ভাড়ায় চলছে ঠিকাদারি উপজেলা স্বাস্থ্য কমপ্লেক্স
রমরমাট ভাবে ভাড়ায় চলছে ঠিকাদারি উপজেলা স্বাস্থ্য কমপ্লেক্স

‘ ঠাকুরগাঁওয়ে স্বাস্থ্য কর্মকর্তাদের জ্ঞান দাও সৃস্টি কর্তা, ভাড়ায় চলছে ঠিকাদারি উপজেলা স্বাস্থ্য কমপ্লেক্স গুলো ‘

রক্তক্ষয়ী সংগ্রামের মাধ্যমে যে দেশে মাতৃভাষা রাষ্ট্র ভাষার মর্যাদা পায়, লক্ষ লক্ষ প্রাণের বিনিময়ে যে দেশ স্বাধীনতা লাভ করে, সে দেশের সেবাদানকারী প্রতিষ্ঠানের মানুষগুলোর মানসিকতা কেন মানবিক হয় না সেটা আমরা বুঝে আসে না। তা হলে যুদ্ধ কারা করলো, কেন করলো সেটাও একটা প্রশ্ন! বিষয়টি ভালোভাবে বুুঝিও না, তবে মুক্তি যোদ্ধাদের সঙ্গে থেকে এটা জেনেছি সেই সময় যে সকল বাঙ্গালি মিলিটারিতে ছিল তারা তখন এ যুদ্ধে নেতৃত্ব দেন তাদের সহযোগিতায় এগিয়ে আসেন ডাক্তার, ইজ্ঞিনিয়ার, আমলাসহ আপাময় জনগণ এ যুদ্ধে অংশহগ্রহন করেছিল।

একটা কারণ ছিল ন্যায্যতা প্রতিষ্ঠা করা এবং নিজের আধিকার নিশ্চিত করা। তবে স্বাধীনতার এত বছর পরেও কেন সেই ন্যায্যতা, মানবিকতা ও নিজ অধিকারটুকু আমরা নিশ্চিত করতে পারছি না। আমার ধারণা আমরা বক্তি গতভাবে এটা চর্চা করছি না বলেই সামষ্টিক ভাবে সমাজে ন্যায্যতা প্রতিষ্ঠিত হচ্ছে না । উপজেলা স্বাস্থ্য্ কমপ্লেক্স রানিসনকৈল ঠাকুরগাঁও এর ২০২০-২০২১ অর্থ বছরের পথ্য-ষ্টেশনারি-লিলেন দর পত্র ২৮ সেপ্টেম্বর গ্রহন করা হয়। ৫ অক্টোবর ঠাকুরগাঁও সিভিল সার্জন দপ্তরে উপজেলা রানিসনকৈল স্বাস্থ্য কমপ্লেক্সের দরপত্র কমিটির সকল সদস্য নিয়ে মূল্যয়ন কমিটির মিাটং হয়। ওই মিটিংএ স্বাস্থ্য কমপ্লেক্স উপজেলা রানিসনকৈল ঠাকুরগাঁও এর র্কমকর্তা ডাঃ আবদুস সামাদ পথ্য সরবরাহের দরপত্রটি সোলাইমান নামে একটি প্রতিষ্ঠানকে কার্যাদেশ দিয়েছেন। সেই সময় অনান্য ঠিকাদাররা ঘুষ নিয়েছেন দরপত্র কমিটি, আভিযোগ এনে সিভিল সার্জন ঠাকুরগাঁও ডাঃ মাহাফুজার রহমান কে লিখিত আবেদন দাখিল করেন। এই অভিযোগের ভিত্তিতে সিভিল সার্জন জানান, উপজেলা স্বাস্থ্য কমিটিতে তার হস্তক্ষেপ করা আইন নেই, তিনি অসহায়। ঠিকাদাররা আরো আভিযোগ করেন দরপত্র কমিটি দরদাতা ঠিকাদারদের দরপত্রে দেয়া দর দেখাননি। এই বিষয়ে ডাঃ আবদুস সামাদ জানান পি পি আর থ্রি’ তে দর গোপন রেখে গোপনে ঠিকাদার নিয়োগ বিধান আছে তিনি তাই করেছেন। এ বিষয়ে জেলা সদর আধুনিক হাসপাতাল তত্বাবধায়ক ডাঃ নাদিরুল আজিজ জানান দরপত্র কমিটি দাখিলকৃত ঠিকাদারদের দর, প্রত্যেক ঠিকাদারদের জানাবেন, দেখাবেন। যদি না দেখান, না জানান এই বিষয়টি পি পি আর থ্রি’ আইন পরিপন্থী। দেখাযায় স্বাস্থ্য কমপ্লেক্সের পথ্য সরবরাহের দরপত্রে ৩৪ টি দ্রবাদি রয়েছে। ওই দরপত্রে ৪ নাম্বার, ৫ নাম্বার তালিকায় রয়েছে দেশি মোরগ ও সোনালি মোরগের মাংস। জানাযায় ২ কোজি মোরগ জবাই করে ১ কোজি মাংস পাওয়া যায়। সর্বনি¤œ দর প্রতি কোজি দেশি মোরগ ৩ শত ৫০ টাকা ও সোনালি মোরগ ২ শত টাকা হলে মাংসের দর প্রতি কেজি দেশি ৭ শত টাকা ও সোনালি ৪ শত টাকা। উক্ত দরের উপর শতকরা ৭ টাকা ৫০ পয়সা ভ্যাট ও ৩ টাকা আয়কর বাধ্যতামুলক যোগ করিতে হইবে। ফলে বাজার দর হয় দেশি প্রতি কোজি ৭শত ৭৪ টাকা, সোনালি প্রতি কোজি ৪ শত ৪২ টাকা। ঠিকাদাররা দরপত্র প্রতিযোগিতায় ৭৭৪+৪৪২ মোট ১ হাজার ২ শত ১৬ টাকার মাঝে শতকরা ৫ টাকা এদিক ওদিক নি¤œ দর দিয়েছে। পক্ষান্তরে স্বাস্থ্য কমপ্লেক্স এর পছন্দের ঠিকাদার ওই দরের প্রায় শতকরা ৭৫ টাকা নি¤œ দর দিয়ে ওই ঠিকাদারকে কার্যাদেশ পায়য়ে দিয়েছেন।কার্যাদেশ পাপ্ত ঠিকাদার যে পরিমান টাকা ঘুষ দিয়ে ঠিকাদারি ভাড়ায় নিয়েছে ওই টাকা পুষিয়ে নিতে কত নি¤œ মানের মাল সরবরাহ করলে পুষিয়ে নেওয়া যায়, তাই ওই ঠিকাদার দেশি ও সোনালি মোরগ না দিয়ে বয়লার ও মৃত মুরগির মাংশ সবরাহ করে আসছেন। এই নিয়ে স্থানিয় জনগনের বাধার সমুক্ষিন হয় ওই ঠিকাদার। মাস্তান ঠিকাদারের নিকট স্থানিয়রা অসহায় তারা দারস্থ হয়েছেন উপজেলা রানিশনকৈল থানা ওসির নিকট। এই বিষয়টি নিয়ে বড় হট্টগোল ঠেকাতে বিজ্ঞ মহল পুলিস সুপার মহোদয়ের হস্তক্ষেপ চেয়েছেন। ঠাকুগাঁওয়ে উপজেল স্বাস্থ্য কমপ্লেক্স গুলোর রুগিদের এই মালামাল সরবরাহ নেওয়ার জন্য ঠিকাদার নিয়োগে ঘুষ ও নি¤œ মানের সরবরাহ নেওয়ায় এর বিচার গত ১২ বছরে না পাওয়ায় বিজ্ঞ মহল সৃস্টি কর্তার নিকট এই চিকিৎসক কর্মকর্তার আপরাধের বিচার চেয়েছেন। তারা আরো জানান এই স্বাস্থ্য কমপ্লেক্স গুলোর ঠিকাদারি ব্যবস্তা ঘুষ মুক্ত ও ঘুষের বিনিময়ে ভাড়া না দেওয়ার আহবান জানান।

আর্কাইভ

সোম মঙ্গল বুধ বৃহ শুক্র শনি রবি
 
১০১১১২১৩১৪১৫১৬
১৭১৮১৯২০২১২২২৩
২৪২৫২৬২৭২৮২৯৩০
৩১  
কর্মহীন ও অসহায়দের মাঝে ইফতার সামগ্রী বিতরণ করেন ঢাকা মহানগর দক্ষিণ ছাত্রলীগের সহ-সম্পাদক অপু

Development by: webnewsdesign.com