শুক্রবার ৯ই ডিসেম্বর, ২০২২ খ্রিস্টাব্দ | ২৪শে অগ্রহায়ণ, ১৪২৯ বঙ্গাব্দ

শিরোনাম >>
শিরোনাম >>

বিশ্বনবী হযরত মুহাম্মদ (সঃ)এবং আম্মাজান আয়শা (রাঃ)কে নিয়ে কটুক্তির প্রতিবাদে নাজিরপুরে বিক্ষোভে জনসমূদ্র

আকরাম আলী ডাকুয়া : নাজিরপুর প্রতিনিধি :   |   শনিবার, ১১ জুন ২০২২ | প্রিন্ট

পিরোজপুর জেলার নাজিরপুর উপজেলার জামেয়া আরারিয়া সাতকাছেমিয়ার উদ্যোগে বিশ্বনবী হযরত মুহাম্মদ (স:) এবং আম্মাজান আয়শা (রা:) কে নিয়ে কটুক্তির প্রতিবাদে বিক্ষোভ করেছেন। মাদ্রাসার শিকার্থীরা ও নাজিরপুর উপজেলার সর্বস্তুরের হাজার হাজার তাওহীদি মুসলিম জনতা এ বিক্ষোভে অংশগ্রহন করেন। বিক্ষোভকারীরা ১১জুন সকাল ১০টা হইতে সাতকাছিমা মাদ্রাসা প্রাঙ্গন হইতে বিক্ষোভ শুরু করে নাজিরপুরের প্রধান প্রধান সড়ক প্রদক্ষিণ করে বিক্ষোভ শেষে উপজেলা পরিষদ মোড়ে সমাবেশ করেন।

সমাবেশে বক্তব্য রাখেন নাজিরপুর থানা মসজিদের ইমাম ও খতিব মুফতী ওবায়দুল্লাহ জোবাই, মাওলানা মুফতী আবুল বাশার নাজীরি, জাতীয় ইমাম সমিতির সভাপতি হাফেজ মাওলানা রফিকুল ইসলাম সবুজ, মাওলানা রুহুল আমীন, মাওলানা ফেরদাউস প্রমুখ।

এ সময় উপজেলা পরিষদের ভাইস চেয়ারম্যান মোঃ মোস্তাফিজুর রহমান রঞ্জু, ৭নং শেখমাটিয় ইউপি চেয়ারম্যান আতিয়ার রহমান চৌধুরী নান্নু, উপজেলা বিএনপির সাধারণ সম্পাদক রেজাউল করিম লিটন, উপজেলা বিএনপির সাবেক সাধারণ সম্পাদক আবু হাসান খান প্রমুখ। বক্তারা পৃথক পৃথক বক্তৃতায় বলেন আজ ভারতের বিজেপি সরকারের দুই কলঙ্গার বিজেপির জাতীয় মুখপাত্র নূপূর শর্মা ও দিল্লির মিডিয়া প্রধান নবীন কুমার জিন্দাল বিশ্বনবীকে নিয়ে ও আম্মাজান আয়শা (রা:) নিয়ে কু-রুচীপূর্ণ কথা বলে বিশ্বের মুসলমানদের কলিজায় রক্তক্ষরণ করেছে তাঁর তীব্র প্রতিবাদ ও নিন্দা জানাই।

বক্তারা আরো বলেন এই কু-লঙ্গারদের যদি বিচার না করা হয় কাতার, সৌদি আরব সহ বহিরাগত মুসলি রাষ্ট্র ভারতে যেভাবে বয়কট করেছে আমাদের দেশেও বর্জন করতে হবে। এ ব্যপারে বক্তারা আরো বলেন আমাদের দেশে ভারতের যে রাষ্ট্রদূত রয়েছে তাকে সরকার ডেকে নিয়ে অচীরেই এর প্রতিবাদ করতে হবে।

এছাড়াও মাওলানা ফেরদাউস তার বক্তৃতায় বলেন, বিক্ষোভ চলাকালীন সময়ে নাজিরপুর উপজেলার সরকারি বঙ্গমাতা বেগম ফজিলাতুন্নেছা মুজিব মহিলা মহাবিদ্যালয়ের সামনে পর্যন্ত আসলে কে বা কাহারা ঐ কলেজের দ্বিতল ভবন থেকে বিক্ষোভ মিছিল কেন্দ্র করে ঢিল ছোড়ে কিন্তু আমরা প্রশাসনকে বিশ্বাস করি বিধায় উত্তেজিন না হয়ে বিষয়টি তাদের হাতে ছেড়ে দিলাম, এই বিক্ষোভে ঢিল ছোড়ার মানেই হল ভারতীয় কুলাঙ্গারদের সমর্থন দেওয়া তাই ঐ জারজ নমরুদের সন্তানদের বিচার প্রশাসন সুষ্ঠু তদন্ত স্বাপেক্ষে করবেন বলে আমরা আশা রাখি।

উক্ত বিক্ষোভে উপজেলার ছাত্রদল, যুবদল, ছাত্রলীগ, ছাত্র সমাজ, ছাত্র শিবির, ছাত্র আন্দোলন, নাজিরপুর উপজেলা যুব সমাজ সহ সকল রাজনৈতিক দলের মুসলিম নেতা-কর্মীরা অংশগ্রহন করেন। বিক্ষোভ শেষে নূপূর শর্মা ও নবীন কুমার জিন্দালের কুষ্পালে জুতার মালা দিয়ে আগুন দিয়ে পোড়ানো হয়।

Facebook Comments Box
advertisement

Posted ১২:২৭ অপরাহ্ণ | শনিবার, ১১ জুন ২০২২

dhakanewsexpress.com |

advertisement
advertisement
advertisement

এ বিভাগের আরও খবর

আর্কাইভ

শনি রবি সোম মঙ্গল বুধ বৃহ শুক্র
 
১০১১১২১৩১৪১৫১৬
১৭১৮১৯২০২১২২২৩
২৪২৫২৬২৭২৮২৯৩০
৩১  
মোঃ মাসুদ রানা হানিফ সম্পাদক