মঙ্গলবার ২৭শে সেপ্টেম্বর, ২০২২ খ্রিস্টাব্দ | ১২ই আশ্বিন, ১৪২৯ বঙ্গাব্দ

শিরোনাম >>
শিরোনাম >>

বায়রা দ্বি-বার্ষিক নির্বাচন ৩ সেপ্টেম্বর

নিজস্ব প্রতিবেদক   |   বৃহস্পতিবার, ০১ সেপ্টেম্বর ২০২২ | প্রিন্ট

বায়রা দ্বি-বার্ষিক নির্বাচন ৩ সেপ্টেম্বর

বাংলাদেশ অ্যাসোসিয়েশন অব ইন্টারন্যাশনাল রিক্রুটিং এজেন্সিজের (বায়রা) নির্বাচন অনুষ্ঠিত হতে যাচ্ছে আগামী ৩ সেপ্টেম্বর। তফসিল অনুযায়ী প্রার্থিতা প্রত্যাহার শেষে গত ১৭ আগস্ট বায়রা নির্বাচন বোর্ড ১৮২ জন প্রার্থীর বৈধ তালিকা প্রকাশ করেছে। এর মধ্যে এক রিক্রুটিং এজেন্সির মালিক নির্বাচন বোর্ডের কাছে অভিযোগ করে বলেছেন, কে বা কারা তার স্বাক্ষর, সিল, প্যাড জাল করে তার মনোনয়নপত্রটি প্রত্যাহারের আবেদন দাখিল করেছেন, যা মোটেও সত্য নয়।

এর আগে গত ৯ জুন নির্বাচন বোর্ডের চেয়ারম্যান বাণিজ্য মন্ত্রণালয়ের উপসচিব মিরাজুল ইসলাম উকিল ও তার দুই সদস্য একই মন্ত্রণালয়ের উপসচিব মো: আবুল কালাম আজাদ এবং তানিয়া ইসলাম স্বাক্ষরিত নির্বাচনী তফসিল-২০২২ ঘোষণা করা হয়।

তফসিলে বায়রার সদস্যদের উদ্দেশ্য বলা হয়েছে, বাংলাদেশ সুপ্রীম কোর্টের আদেশ মোতাবেক বাণিজ্য সংগঠন আইন ২০২২, বাণিজ্য সংগঠন বিধিমালা, ১৯৯৪ এবং বায়রার সংঘবিধি অনুযায়ী গোপন ব্যালটের মাধ্যমে বায়রার ২৭ সদস্য বিশিষ্ট কার্যনির্বাহী কমিটির ২০২২-২৪ (২৪ মাস) মেয়াদি নির্বাচন অনুষ্ঠানের জন্য তফসিল ঘোষণা করা হলো।

তফসিলের কার্যক্রম অনুযায়ী গত ১৭ আগস্ট বিকেল ৪টায় প্রার্থীর পদ প্রত্যাহার শেষে নির্বাচন বোর্ড-২০২২ বায়রা কর্তৃক চূড়ান্ত প্রার্থী তালিকা প্রকাশ করা হয়। ওই তালিকাটি বায়রার নিজস্ব ওয়েব সাইটে প্রকাশ করা হয়েছে। দেখা যায়, চূড়ান্ত প্রার্থী তালিকায় মোট ১৮২ জনের নাম দেয়া হয়েছে। ছকে ভোটার নম্বর, ছবি, প্রার্থীর নাম, রিক্রুটিং এজেন্সির লাইসেন্স নম্বর ও এজেন্সির নাম উল্লেখ রয়েছে। শিডিউল অনুযায়ী ৩ সেপ্টেম্বর ভোট গ্রহণ এবং ভোট গ্রহণপর্ব শেষে গণনা সম্পন্ন হওয়ার পর নির্বাচনী ফলাফল ঘোষণা করা হবে। এর আগে সকাল ৯টা থেকে বিকেল ৪টা পর্যন্ত বিরতিহীনভাবে ভোট গ্রহণ চলবে।

তবে নির্বাচন বোর্ড কর্তৃক প্রার্থী তালিকার চূড়ান্ত নামের তালিকার নিচে উল্লেখ করা হয়েছে, মেসার্স টাওয়ার ট্রেড ইন্টারন্যাশনাল লি: (আরএল নং৪৯৯), ভোটার নম্বর ১৯৮। তিনি ১৪ আগস্ট সরাসরি উপস্থিত হয়ে মনোনয়নপত্র প্রত্যাহার করেন এবং বায়রা সচিবালয় থেকে প্রাপ্তি স্বীকারপত্র গ্রহণ করেন। অতঃপর তিনি ১৬/৮/২০২২ তারিখে মনোনয়নপত্র প্রত্যাহারের সময়সীমার মধ্যে আরো একটি আবেদন করেন। সেখানে তিনি উল্লেখ করেন, ১৪ আগস্ট কে-বা কারা তার স্বাক্ষর, সিল, প্যাড জাল করে তার মনোনয়নপত্রটি প্রত্যাহারের জন্য দাখিল করেন। এই বিষয়ে ১৭ আগস্ট বিকেল সাড়ে ৫টার দিকে রিক্রুটিং এজেন্সির মালিক মো: ইসহাক খান বায়রা নির্বাচন বোর্ডের চেয়ারম্যানের সাথে হোয়াটসঅ্যাপে ভিডিও কলের মাধ্যমে আলাপ হয়। আলাপে তিনি ১৪ আগস্ট তারিখে মনোনয়নপত্র প্রত্যাহারের জন্য কোনো আবেদন দাখিল করেননি। তিনি তার মনোনয়নপত্র বহাল রাখার জন্য নির্বাচন বোর্ডের চেয়ারম্যানকে অনুরোধ করেন।

এ সময় বায়রায় কর্মরত-কর্মকর্তা কর্মচারীরা তাকে হোয়াটসঅ্যাপে শনাক্ত করলে সার্বিক বিবেচনায় তার মনোনয়নপত্রটি বহাল রাখার সিদ্ধান্ত নেয়া হয়। তবে জাল প্যাডে আবেদনটি কোথা থেকে এলো সে ব্যাপারে কোনো তথ্য সেখানে উল্লেখ নেই। বায়রায় প্রশাসকের দায়িত্ব পালন করছেন বাণিজ্য মন্ত্রণালয়ের যুগ্মসচিব (আইআইটি-১ অধিশাখা) মোহাম্মদ দাউদুল ইসলাম।

এ দিকে বায়রা নির্বাচন অনুষ্ঠানের সময় যত ঘনিয়ে আসছে ততই জমে উঠেছে এর প্রচার প্রচারণা। বিশেষ করে একাধিক গ্রুপে বিভক্ত নির্বাচনের প্রার্থী এবং পছন্দের ভোটাররা প্রতিনিয়ত আলাদা আলাদাভাবে ঘরোয়া বৈঠক করছেন। কখনো পাঁচ তারকা হোটেলের হলরুম ভাড়া নিয়ে প্রার্থী পরিচিত সভা করানো ছাড়াও ডিনারের আয়োজন করা হচ্ছে। তবে এবারের নির্বাচনে মালয়েশিয়ার শ্রমবাজার ঘিরে গড়ে ওঠা ২৫ সিন্ডিকেটের সদস্যদের সাথে যেসব রিক্রুটিং এজেন্সির মালিক যোগ দিয়েছেন তাদেরকে একটি পক্ষ বানানো হয়েছে। অপর দিকে এই কথিত সিন্ডিকেটের বিরুদ্ধে বায়রার যে সহস্রাধিক সাধারণ সদস্য রয়েছেন তাদের প্রতিপক্ষ গ্রুপ বলা হচ্ছে। তাদের এবারের নির্বাচনে টার্গেট এবং সেøাগান হচ্ছে কোনো সিন্ডিকেট করে ব্যবসা আর নয়, লাইসেন্স যার ব্যবসা তার। এ ছাড়াও মাঠপর্যায়ে সিন্ডিকেটের বিরুদ্ধে আন্দোলন করা আরো দু’টি গ্রুপ আলাদা প্যানেলে নির্বাচন করতে পারে বলে রিক্রুটিং এজেন্সির মালিকদের সাথে আলাপে জানা গেছে। তবে নির্বাচনসংক্রান্ত বেশির ভাগ আলোচনা-সমালোচনা সদস্যদের একাধিক হোয়াটসঅ্যাপ গ্রুপে হচ্ছে।

একাধিক রিক্রুটিং এজেন্সির মালিক বায়রা নির্বাচন প্রসঙ্গে নয়া দিগন্তকে নাম না প্রকাশের শর্তে বলেন, কথিত ২৫ সিন্ডিকেট অনেক নাটকের পর মালয়েশিয়ার শ্রমবাজার কব্জায় নিয়েছে। এবার তাদের টার্গেট বায়রা নিয়ন্ত্রণে নেয়ার। সেই লক্ষ্য মালয়েশিয়ার শ্রমবাজারে শ্রমিক পাঠানোর সুযোগ দেয়ার কথা বলে তাদের দলে কৌশলে আরো ২৫০ রিক্রুটিং এজেন্সি মালিককে অন্তর্ভুক্ত করা হয়েছে বলে অভিযোগ আছে। এই ভোটগুলো তারা পাবে বলে প্রচার করা হচ্ছে। কিন্তু সিন্ডিকেট সদস্যরা ওই ভোটারদের বেশির ভাগ ভোট না-ও পেতে পারে। কারণ তারাও সিন্ডিকেটের বিরুদ্ধে অবস্থান নিয়েছেন ভেতরে ভেতরে। যেহেতু তারা বৈধ লাইসেন্সের মালিক হওয়ার পরও মালয়েশিয়ার শ্রমবাজারে শুধু সিন্ডিকেট করায় এখন তারা সাব এজেন্ট হিসেবে পরিচিতি পেয়েছেন। এটা তারা সহজভাবে মেনে নিতে পারছেন না। এর প্রতিফলন ভোটের দিন দেখা দিতে পারে বলে তাদের ধারণা।

Facebook Comments Box
advertisement

Posted ৮:০৬ পূর্বাহ্ণ | বৃহস্পতিবার, ০১ সেপ্টেম্বর ২০২২

dhakanewsexpress.com |

advertisement
advertisement
advertisement

আর্কাইভ

শনি রবি সোম মঙ্গল বুধ বৃহ শুক্র
 
১০১১১২১৩১৪১৫১৬
১৭১৮১৯২০২১২২২৩
২৪২৫২৬২৭২৮২৯৩০
মোঃ মাসুদ রানা হানিফ সম্পাদক