সোমবার ৫ই ডিসেম্বর, ২০২২ খ্রিস্টাব্দ | ২০শে অগ্রহায়ণ, ১৪২৯ বঙ্গাব্দ

শিরোনাম >>
শিরোনাম >>
অবৈধ বালু উত্তোলনকারীদের অবৈধ কর্মকাণ্ডের বিরুদ্ধে মামলা দায়েরের ব্যবস্থা

বালুমহাল আইনের প্রস্তাবে খাদ্য নিরাপত্তা, পরিবেশ সুরক্ষা ও স্মার্ট ব্যবস্থাপনায় জোর

নিজস্ব প্রতিবেদক   |   সোমবার, ০৭ নভেম্বর ২০২২ | প্রিন্ট

বালুমহাল আইনের প্রস্তাবে খাদ্য নিরাপত্তা, পরিবেশ সুরক্ষা ও স্মার্ট ব্যবস্থাপনায় জোর

‘বালুমহাল ও মাটি ব্যবস্থাপনা (সংশোধন) আইন-২০২২’-এর খসড়ায় খাদ্য নিরাপত্তা, পরিবেশ সুরক্ষা এবং স্মার্ট বালুমহাল ব্যবস্থাপনায় জোর দেওয়া হয়েছে। গত ৩১ অক্টোবর তারিখে এই আইনের খসড়ার চূড়ান্ত অনুমোদন দিয়েছে মন্ত্রিসভা।

ভূমিসেবা ডিজিটালাইজেশনের সাথে সামঞ্জস্য রেখে যেন খসড়াকৃত ভূমি সম্পর্কিত আইনগুলো পাসের উদ্দেশ্যে যেন দ্রুত ও কার্যকরীভাবে সংসদে পাঠানো যায় সেই ব্যাপারে ভূমি মন্ত্রী সাইফুজ্জামান চৌধুরীর সুস্পষ্ট নির্দেশনা আছে।

বালুমহাল ইজারা প্রদান সংক্রান্ত জটিলতা নিরসন, বালুমহাল হতে পরিকল্পিতভাবে বালু ও মাটি উত্তোলন ও বিপণন, এর নিয়ন্ত্রণ, এই সংক্রান্ত সংঘটিত অপরাধসমূহ দমনসহ এবং বালুমহাল ব্যবস্থাপনা সার্বিকভাবে যুগোপযোগী করার জন্য ‘বালুমহাল ও মাটি ব্যবস্থাপনা আইন, ২০১০’-এর সংশোধনীর উদ্যোগ গ্রহণ করেছে সরকার। বালুমহাল ইজারা প্রদান বাবদ রাষ্ট্রীয় কোষাগারের বছরে গড়ে প্রায় ১০০ থেকে ১৫০ কোটি টাকা আয় হয়।

প্রস্তাবিত ‘বালুমহাল ও মাটি ব্যবস্থাপনা (সংশোধন) আইন-২০২২’-এর খসড়ায় সংযুক্ত প্রধান প্রধান বিষয়গুলোর মধ্যে অন্যতম হচ্ছে, ব্যক্তিমালিকানাধীন উর্বর কৃষি জমি রক্ষা, কৃষি জমির উপরিভাগের উর্বর মাটি সংরক্ষণের ব্যবস্থাসহ ভূগর্ভস্থ বালু বা মাটি উত্তোলনের ফলে উক্ত জমিসহ পার্শ্ববর্তী অন্য জমি বা প্রতিবেশের যাতে ক্ষতি সাধন না হয় তা বন্ধ করার বিধান। এছাড়া, পরিবেশের ক্ষতি সাধিত হয় কিংবা পার্শ্ববর্তী ভূমির ক্ষতি, চ্যুতি বা ধসের কারণ উদ্ভব হয় এমন কোনও ব্যক্তিমালিকানাধীন ভূমি হতেও কোনও বালু বা মাটি উত্তোলন না করার বিধান রাখা হয়েছে প্রস্তাবিত আইনে।

ইজারা কার্যক্রম দ্রুত অনলাইনে সম্পাদন, বালু উত্তোলন কার্যক্রম ও পরিমাণ মনিটরিং করার জন্য স্যাটেলাইট ডাটা ব্যাবহার বা সিসি ক্যামেরা স্থাপন বা ৬ মাস পর পর ডিজিটাল সার্ভে করার বিধান রাখা হয়েছে প্রস্তাবিত সংশোধিত আইনে।

সরকারের উন্নয়ন কার্যক্রমের প্রয়োজনে বা জনগুরুত্বপূর্ণ কাজের জন্য ইজারা বহির্ভূত বালুমহাল ও অন্য এলাকা হতে বালু বা মাটি উত্তোলন ও ব্যবস্থাপনা, নির্ধারিত নৌপথের বাইরে হাইড্রোগ্রাফিক জরিপের প্রযোজ্য না হওয়া এবং ইজারা বহির্ভূত থাকা বালুমহাল থেকে খাস আদায় পদ্ধতিতে বালু/মাটি উত্তোলনের বিধান এই প্রস্তাবিত আইনে সন্নিবেশ করা হয়েছে।

অসাধু ব্যক্তিদের অপতৎপরতা রোধ করার জন্য যেসব বিধান সংযুক্ত করা হয়েছে তার মধ্যে অন্যতম হচ্ছে, ইজারার শর্ত ভঙ্গকারী ব্যক্তি বা প্রতিষ্ঠানকে কালো তালিকাভুক্ত করা, অবৈধ বালু উত্তোলনকারীদের অবৈধ কর্মকাণ্ডের বিরুদ্ধে মামলা দায়ের, অপরাধের সরঞ্জাম বাজেয়াপ্তকরণ ও ক্ষতিপূরণ আদায় ইত্যাদি।

এছাড়া, উত্তোলিত বালু পরিবহনের কারণে কোন রাস্তা ক্ষতিগ্রস্ত হলে তা বালু পরিবহনকারী কর্তৃক মেরামত করে দেওয়া বা ক্ষতিপূরণ আদায়ের বিধান এবং ইজারা বহির্ভূত থাকা বালুমহাল থেকে খাস আদায় পদ্ধতিতে বালু/মাটি উত্তোলনের বিধান এই আইনের খসড়ায় প্রস্তাব করা হয়েছে।

‘বালুমহাল ও মাটি ব্যবস্থাপনা (সংশোধন) আইন-২০২২’ মন্ত্রিপরিষদে পাস হওয়ার সাথে সাথে এই আইন প্রণয়নের প্রাথমিক কার্যক্রম শেষ হলো। এখন আইন বিচার ও সংসদ বিষয়ক মন্ত্রণালয়ের সাহায্য চূড়ান্ত খসড়া তৈরি করে পরবর্তী কার্যক্রমের জন্য সংসদ সচিবালয়ে জাতীয় সংসদে আইন পাসের জন্য বিল উত্থাপনের ব্যবস্থা গ্রহণের জন্য পাঠানো হবে।

ভূমি মন্ত্রণালয় ডিজিটাল সেবা প্রবর্তনের পাশাপাশি আইন ও বিধি-বিধান সংশোধন করে, এবং প্রযোজ্য ক্ষেত্রে নতুন আইনের খসড়া করে টেকসই ভূমি ব্যবস্থাপনা স্থাপনে জোর দিচ্ছে। উপর্যুক্ত আইন ছাড়াও উল্লেখযোগ্য নতুন যে সব আইন নিয়ে কাজ করা হচ্ছে তারমধ্যে অন্যতম ভূমি অপরাধ প্রতিরোধ ও প্রতিকার আইন, ভূমি সংস্কার আইন, ভূমি উন্নয়ন কর আইন, হাট ও বাজার স্থাপন ও ব্যবস্থাপনা আইন, ভূমি মালিকানা ও ব্যবহার আইন ইত্যাদি।

বালুমহাল বলতে পরিবেশ অক্ষুণ্ণ রেখে আহরণযোগ্য বা উত্তোলনযোগ্য বালু (খনিজ বালু ও সিলিকা বালু ব্যতীত) বা মাটি (মটলড্ ক্লে, শেল বা ক্লে এবং চায়না ক্লে ব্যতীত) বা অন্যান্য বালু মিশ্রিত মাটি সংরক্ষিত আছে এমন কোন উন্মুক্ত স্থান, চা বাগানের ছড়া বা নদীর তলদেশ যা সংশ্লিষ্ট আইনের অধীন জেলা প্রশাসক কর্তৃক বালুমহাল হিসাবে ঘোষিত।

 

 

Proposed Balumahal law emphasizes on food safety, environmental protection and smart management

Provision of prosecuting the unlawful activities of illegal sand extractors

The draft ‘Balumahal and Soil Management (Amendment) Act-2022’ (Sand Quarry and Soil Management (Amendment) Act-2022) emphasizes food security, environment protection, and smart sand quarry management. The cabinet approved the draft law on last October 31.

Land Minister Saifuzzaman Chowdhury has instructions to quickly and efficiently send the draft land-related laws to the Parliament for the purpose of enacting the legislation in line with land services digitalization.

The government has taken initiatives to amend the ‘Balumahal and Soil Management Act, 2010’ to solve the complexities related to the leasing of sand quarries, to planned extraction and marketing of sand and soil from quarries, its control, to curb the crimes committed and to set-up up-to-date sand quarry management system. The state exchequer earns an average of Taka 100 to Tk 150 crore annually from sand quarry (Balumahal) lease payments.

Important matters included in the draft of the proposed ‘Sand Quarry and Soil Management (Amendment) Act-2022’ are the provisions of prohibition of the extraction of underground sand or soil if that causes damage to that land including or the neighborhood land, the protection of privately owned fertile agricultural land and, the conservation of fertile top-soil of agricultural land. In addition, the proposed law provides that no sand or soil should be extracted from any privately owned land that causes damage to the environment or causes damage, erosion, or landslide of the surrounding land.

The proposed amended law has the provision of speedy online leasing execution, and has also provision of using satellite data, or installing CC cameras or conducting of biannual digital surveys for monitoring sand extraction activities and quantity.

In this proposed law, the provision of extracting and managing sand or soil from non-leased sand quarries and other areas for government development activities or important public works, noncompulsory of hydrographic survey outside the prescribed waterway and lifting of sand/soil from the non-leased sand quarries in the method of collecting Khas are included.

Some of the provisions which are also included to prevent the misdeeds of unscrupulous folks are the blacklisting of individuals or institutions violating the leasing conditions, prosecuting the unlawful activities of illegal sand extractors, confiscating assets used in criminal activities, and recovering compensation, etc.

The provision of compulsory repairing of damaged road due to the transportation of lifted sand by sand transporter or impose of compensation on sand transporter for that reason is included, and also, the provision of lifting sand/soil in the method of collecting Khas from the non-leased sand quarry is proposed in the draft of this law.

With the passing of the ‘Sand Quarry and Soil Management (Amendment) Act-2022’ by the Cabinet, the preliminary proceedings of enacting this law has ended. Now, with the help of the Ministry of Law, Justice and Parliamentary Affairs, the final draft will be prepared and sent to the Parliament Secretariat for taking necessary proceedings to introduce the bill in the National Parliament (Jatiya Sangsad) for enacting the law.

The Ministry of Land is focusing on establishing sustainable land management by introducing digital services as well as revising laws and regulations, and drafting new laws where applicable. Apart from the aforementioned law, some of the significant new laws being worked on include Land Crime Prevention and Redress Act, Land Reforms Act, Land Development Tax Act, Hats and Bazars Establishment and Management Act, Land Ownership and Use Act etc.

Sand Quarry (Balumahal) refers to an open space, tea plantation stream or riverbed where environmentally friendly extractable sand (except mineral sand and silica sand) or soil (except Mottled clay, Shale or Clay and China Clay) or other sand-mixed soil is preserved and declared as Balumahal by the Deputy Commissioner under the related Act.

Facebook Comments Box
advertisement

Posted ৬:২৯ অপরাহ্ণ | সোমবার, ০৭ নভেম্বর ২০২২

dhakanewsexpress.com |

advertisement
advertisement
advertisement

এ বিভাগের আরও খবর

আর্কাইভ

শনি রবি সোম মঙ্গল বুধ বৃহ শুক্র
 
১০১১১২১৩১৪১৫১৬
১৭১৮১৯২০২১২২২৩
২৪২৫২৬২৭২৮২৯৩০
৩১  
মোঃ মাসুদ রানা হানিফ সম্পাদক