রবিবার ২রা অক্টোবর, ২০২২ খ্রিস্টাব্দ | ১৭ই আশ্বিন, ১৪২৯ বঙ্গাব্দ

শিরোনাম >>
শিরোনাম >>

বাংলাদেশের মেয়েদের পাশে এবার নোবেলজয়ী মালালা

নিজস্ব প্রতিবেদক   |   শনিবার, ১০ সেপ্টেম্বর ২০২২ | প্রিন্ট

বাংলাদেশের মেয়েদের পাশে এবার নোবেলজয়ী মালালা

শান্তিতে নোবেল পুরস্কারজয়ী মালালা ইউসুফজাইয়

-ফাইল ছবি

শান্তিতে নোবেল পুরস্কারজয়ী মালালা ইউসুফজাইয়ের নাম এবার জড়াল বাংলাদেশের সঙ্গে। কারণ, বাংলাদেশের মেয়েদের শিক্ষায় এগিয়ে নিয়ে যেতে কাজ করবে ‘মালালা ফান্ড’ (Malala Fund)। নোবেল পুরস্কার হিসাবে যে টাকা মালালা পেয়েছিলেন তা দিয়ে করা হয়েছে ওই ফান্ড। বিশ্বের একাধিক দেশে মহিলাদের শিক্ষা এবং সামাজিকভাবে উন্নত করতে কাজ করে ওই সংস্থা। এবার বাংলাদেশের তিনটি সংস্থাকে নিয়ে কাজ শুরু করেছে ‘মালালা ফান্ড’ (Malala Fund)। এই কাজে যুক্ত হয়েছে ফ্রেন্ডশিপ, গণসাক্ষরতা অভিযান ও পিপলস্ ওরিয়েন্টেড প্রোগ্রাম ইমপ্লিমেন্টেশন নামের তিনটি প্রতিষ্ঠান। মূলত চর, হাওর ও উপকূলের দরিদ্র পরিবারের মেয়েদের শিক্ষার উন্নতিতে কাজ করবে ওই সংস্থাগুলি। যে তিনটি সংস্থাকে বেছে নেওয়া হয়েছে সেগুলি আগে থেকেই বাংলাদেশের পিছিয়ে পড়া এবং প্রান্তিক এলাকায় মহিলা এবং অন্যদের শিক্ষাক্ষেত্রে এগিয়ে নিয়ে যাওয়ার জন্য কাজ করছে।

পাকিস্তানের খাইবার পাখতুনখাওয়ার সোয়াত উপত্যকার মালালা। ওই এলাকা তালিবানরা দখল নেওয়া পরে মেয়েদের স্কুলে যাওয়ার ক্ষেত্রে নিষেধাজ্ঞা জারি করেছিল। ওই ফতোয়ার প্রতিবাদ করে মালালা ইউসুফজাই। নিয়মিত স্কুলে যেতেন মালালা। সেই সময়ে, ২০১২ সালের ৯ অক্টোবর স্কুল থেকে ফেরার সময় মালালাসহ তিনজনকে গুলি করেছিল তালিবানরা। মার্কিন যুক্তরাষ্ট্রে চিকিৎসার ফলে সুস্থ হয়ে ওঠেন মালালা। নারী শিক্ষার জন্য বিশ্বের মুখ হয়ে ওঠেন তিনি। ২০১৪ সালে মাত্র ১৭ বছর বয়সে শান্তিতে নোবেল পুরস্কার পান মালালা । এত কম বয়সে কেউ ওই পুরস্কার পাননি।

২০১৩ সালে মালালা এবং তাঁর বাবা জিয়াউদ্দিন ইউসুফজাই তৈরি করেন ‘মালালা ফান্ড’। সেই টাকায় ভারত, পাকিস্তান , আফগানিস্থান সহ একাদিক দেশে চলছে ‘এডুকেশন চ্যাম্পিয়নস নেটওয়ার্ক’ কর্মসূচি। ওই কর্মসূচির প্রধান লক্ষ্য, বিশ্বের সব মেয়ে যেন ১২ বছরের শিক্ষা নিরাপদে শেষ করতে পারে। মালালা ফান্ড প্রথমে কোনও দেশের মেয়েদের শিক্ষার হাল নিয়ে সমীক্ষা চালায়। সেখানে কী সমস্যা আছে তা খতিয়ে দেখে। তারপরে সেই এলাকায় কারা মেয়েদের পড়াশোনা নিয়ে কাজ করে তা খুঁজে বার করে ।

বাংলাদেশে মালালা ফান্ডের প্রতিনিধি মোশাররফ তানসেন জানান, ২০২০ সালে ওপার বাংলায় কাজ শুরু করেন তারা। কাজ শুরু করার আগে বাংলাদেশ সরকারের প্রয়োজনীয় অনুমোদন নেওয়া হয়। মালালা ফান্ড শুধুমাত্র মেয়েদের শিক্ষা নিশ্চিত করার জন্য নয়, বাল্যবিবাহ , কুসংস্কার সহ নানা সামাজিক অভিশাপ দূর করার লক্ষ্যেও কাজ করে।

Facebook Comments Box
advertisement

Posted ৪:৩০ অপরাহ্ণ | শনিবার, ১০ সেপ্টেম্বর ২০২২

dhakanewsexpress.com |

advertisement
advertisement
advertisement

আর্কাইভ

শনি রবি সোম মঙ্গল বুধ বৃহ শুক্র
১০১১১২১৩১৪
১৫১৬১৭১৮১৯২০২১
২২২৩২৪২৫২৬২৭২৮
২৯৩০৩১  
মোঃ মাসুদ রানা হানিফ সম্পাদক