বৃহস্পতিবার ৭ই জুলাই, ২০২২ খ্রিস্টাব্দ | ২৩শে আষাঢ়, ১৪২৯ বঙ্গাব্দ

দেশের অর্থনীতির আরও উন্নয়ন নিশ্চি ত করতে একটি সমন্বিত আর্থিক লেনদেন ব্যবস্থা দরকার-আইসিএবি’র সেমিনারে বক্তারা

নিজস্ব প্রতিবেদক   |   বুধবার, ০৮ জুন ২০২২ | প্রিন্ট

দেশের অর্থনীতির আরও উন্নয়ন নিশ্চি ত করতে একটি সমন্বিত আর্থিক লেনদেন ব্যবস্থা দরকার-আইসিএবি’র সেমিনারে বক্তারা

দেশের অর্থনীতির আরও উন্নয়ন নিশ্চি ত করতে একটি সমন্বিত আর্থিক লেনদেন ব্যবস্থা দরকার-আইসিএবি’র সেমিনারে বক্তারা

-প্রতিনিধি

দেশের অর্থনীতির   আরও উন্নয়ন নিশ্চিত করতে একটি সমন্বিত আর্থিক লেনদেন ব্যবস্থা দরকার। এর অভাবে অনেক অসঙ্গতি এবং ফাঁক থেকে যায়  যার সুযোগ নিচ্ছে কিছু স্বার্থান্বেসী মহল ও সংস্থা । “আমরা লক্ষ্য করেছি যে দেশের কিছু ক্ষেত্রে আর্থিক ব্যবস্থা ক্রমান্বয়ে সমন্বিত করা হচ্ছে। আইসিএবি এবং এনবিআর একটি চুক্তি স্বাক্ষর করেছে এবং এর ফলে আর্থিক প্রতিবেদনগুলো  ক্রস চেক করার সুযোগ হয়েছে । এটি খুবই ইতিবাচক উদ্যোগ এবং এটি মিথ্যা আর্থিক প্রতিবেদনের  সংখ্যা কমাতে সাহায্য করবে এবং শেষ পর্যন্ত আর্থিক ব্যবস্থায় আরও স্বচ্ছতা ও জবাবদিহিতা নিশ্চিত হবে ”- – বলেছেন ড. খোন্দকার গোলাম মোয়াজ্জেম, গবেষণা পরিচালক, সেন্টার ফর পলিসি ডায়ালগ (সিপিডি)।

অর্থনীতির পুনরুদ্ধারের বিষয়ে বিভিন্ন সুপারিশ তুলে ধরে তিনি বলেন, আর্থিক দুর্নীতি কমাতে এনবিআর এবং বাণিজ্যিক ব্যাংকের পাশাপাশি বৈদেশিক মুদ্রা ব্যবসায়ীদের মধ্যে একটি সম্বন্বয় থিাকতে হবে ।

ড. আতিউর রহমান, সাবেক গভর্নর, বাংলাদেশ ব্যাংক বলেন, বৈদেশি মুদ্রা বাঁচাতে আমাদের বিভিন্ন পণ্যের আমদানির ব্যাপারে খুবই সতর্ক হতে হবে। আমদানিকে নিরুৎসাহিত করার জন্য সরকার বিভিন্ন বিলাসবহুল আইটেম আমদানিতে আরও কর আরোপ করতে পারে। যা সরাসরি কর্মসংস্থান এবং বিনিয়োগ নয় এমন বিলাসবহুল প্রকল্পের সংখ্যা কমাতে হবে । আমরা যদি তৈরি পোশাকের মতো রপ্তানি পণ্যের জন্য ব্যবহৃত কাচঁমাল স্থানীয় উৎপাদনের উপর জোর দিই তবে আমরা বছরে ১০ থেকে ১৫ বিলিয়ন ডলার সাশ্রয় করতে পারি, বলে জানান  তিনি । শুধুমাত্র সেবা শিল্প বিশেষ করে সমৃদ্রপথে পন্য পরিবহন জাহাজ শিল্পের উন্নতির মাধ্যমে বাংলাদেশ হাজার হাজার ডলার সাশ্রয় করতে পারবে, তিনি মন্তব্য করেন।

গত ৭ জুন ২০২২ তারিখে ইনস্টিটিউট অফ চার্টার্ড অ্যাকাউন্ট্যান্টস অফ বাংলাদেশ (আইসিএবি) কর্তৃক আয়োজিত উন্নয়নশীল দেশগুলিতে মুদ্রার অবমূল্যায়নের রাজনৈতিক অর্থনীতি: তুলনামূলক অনুশীলন এবং বাংলাদেশের এর উপর একটি ভার্চুয়াল ওয়েবিনারে উপস্থিত থেকে বক্তারা এসব কথা বলেন।

ড. আতিউর রহমান, প্রাক্তন গভর্নর, বাংলাদেশ ব্যাংক ওয়েবিনারে প্রধান অতিথি হিসেবে উপস্থিত ছিলেন যেখানে বিশেষ অতিথি  হিসাবে উপস্থিত ‍ছিলেন,  খোন্দকার গোলাম মোয়াজ্জেম, গবেষণা পরিচালক, সেন্টার ফর পলিসি ডায়ালগ (সিপিডি) স্বাগত বক্তব্য রাখেন আইসিএবি সভাপতি মোঃ শাহাদাৎ হোসেন এফসিএ।

অধিবেশন সঞ্চালনা করেন আদিব হোসেন খান এফসিএ, কাউন্সিল সদস্য ও সাবেক সভাপতি –আইসিএবি এবং সিনিয়র পার্টনার, রহমান হক হক, চার্টার্ড অ্যাকাউন্ট্যান্টস।

ড. জামালউদ্দিন আহমেদ এফসিএ, সাবেক প্রেসিডেন্ট-আইসিএবি এবং চেয়ারম্যান, ইমার্জিং ক্রেডিট রেটিং লিমিটেড সম্মেলনে মূল প্রবন্ধ উপস্থাপন করেন। মঞ্জুর আহমেদ, উপদেষ্টা, ফেডারেশন অব বাংলাদেশ চেম্বারস অব কমার্স অ্যান্ড ইন্ডাস্ট্রি (এফবিসিসিআই) এবং ড. এম আবু ইউসুফ, নির্বাহী পরিচালক, রিসার্চ অ্যান্ড পলিসি ইন্টিগ্রেশন ফর ডেভেলপমেন্ট (র‌্যাপিড) বাংলাদেশ প্যানেল বক্তা হিসাবে উপস্থিত ছিলেন।

আইসিএবি সভাপতি মোঃ শাহাদাৎ হোসেন বলেন, দেশের মুদ্রাবাজার অচল হয়ে পড়েছে এবং জানুয়ারিতে বড় ধরনের অবমূল্যায়নের পর কেন্দ্রীয় ব্যাংক কয়েকবার টাকার অবমূল্যায়ন করতে বাধ্য হয়েছে। কার্ব মার্কেটে একটি ডলারের সর্বশেষ বিক্রি এবং ক্রয় ১০২ টাকা রেকর্ডে রয়েছে, যা বৈদেশিক মুদ্রার সঙ্কটের গভীরতা তুলে ধরে ।

এই সর্বশেষ বৈদেশিক মুদ্রার সংকট দেশের বৈদেশিক মুদ্রার রিজার্ভে আরও চাপ সৃষ্টি করবে, তিনি মন্তব্য করে তিনি বলেন, ফলে দেশের অর্থনীতি এবং বিশেষ করে পণ্য ও খাবারের দাম আরো বৃদ্ধি পাবে।

তিনি বলেন, মহামারী এবং জ্বালানি তেলের অত্যধিক ক্রমবর্ধমান দামের কারণে বিশ্বের অর্থনীতি ক্ষতিগ্রস্ত হয়েছে। এসব কারণে বাসাবাড়িতে এমনকি ইউটিলিটর ব্যবহারের দাম বাড়ছে । ইতোমধ্যে গ্যাসের দাম বাড়ানো হয়েছে। গ্যাসের দাম বৃদ্ধির পর বিদ্যুতের দাম বাড়তে পারে- বলে তিনি মন্তব্য করেন।

মূলপ্রবন্ধের মূল বৈশিষ্ট্যগুলি তুলে ধরে, প্রবন্ধ উপস্থাপক ড. জামালউদ্দিন আহমেদ এফসিএ, সাবেক প্রেসিডেন্ট-আইসিএবি এবং চেয়ারম্যান, ইমার্জিং ক্রেডিট রেটিং লিমিটেড, বলেন, মুদ্রার মূল্যবৃদ্ধি এবং অবমূল্যায়ন দেশ ও আন্তর্জাতিক লেনদেনকে প্রভাবিত করে কারণ এটি আন্তর্জাতিকভাবে বাজারজাত দ্রব্যর মূল্যকে প্রভাবিত করে। একটি দেশের মুদ্রার অবমূল্যায়ন দেশের অর্থনৈতিক, সামাজিক, রাজনৈতিক জীবনে একাধিক প্রভাব বহন করে।

নীতিনির্ধারকরা কার্যকরভাবে মুদ্রানীতিকে  পরিচালনা করলে তারা অর্থনৈতিক স্থিতিশীলতা বজায় রাখতে সক্ষম হবেন। অন্যরা যারা করতে ব্যর্থ হবেন তারা অর্থনীতির পাশাপাশি অর্থনীতির সমস্ত সেক্টরে অস্থিতিশীলতা, দেশের অর্থনৈতিক প্রবৃদ্ধির পতন, সামাজিক ও রাজনৈতিক অস্থিতিশীলতার জন্য দায়ী হবেন্ ।  তিনি মুদ্রার অবমূল্যায়নের কারণে সৃষ্ট সংকট থেকে পুনরুদ্ধারের জন্য কিছু বিকল্প সমাধানের পরামর্শ দেন।

Facebook Comments Box
advertisement

Posted ৬:৩৪ অপরাহ্ণ | বুধবার, ০৮ জুন ২০২২

dhakanewsexpress.com |

advertisement
advertisement
advertisement

এ বিভাগের আরও খবর

আর্কাইভ

শনি রবি সোম মঙ্গল বুধ বৃহ শুক্র
 
১০১১১২১৩১৪১৫
১৬১৭১৮১৯২০২১২২
২৩২৪২৫২৬২৭২৮২৯
৩০৩১  
মোঃ মাসুদ রানা হানিফ প্রকাশক ও সম্পাদক
অফিস

সম্পাদকীয় ও বাণিজ্যিক কার্যালয় ৮৯/আই/১, আর কে মিশন রোড, গোপীবাগ (৭ম গলি) ঢাকা-১২০৩।

হেল্প লাইনঃ ০১৭২০-০০৮২৩৪, ০১৯২০-০০৮২৩৪

E-mail: dhakanewsexpress@gmail.com, dhakanewsexpress1@gmail.com