জনপ্রিয় সংবাদ

x



জমি অধিগ্রহণে তিন গুণ ক্ষতিপূরণ ব্যবস্থার অপব্যবহার হচ্ছে-ভূমিমন্ত্রী

বৃহস্পতিবার, ১০ অক্টোবর ২০১৯ | ১২:১৭ পিএম | 31 বার

জমি অধিগ্রহণে তিন গুণ ক্ষতিপূরণ ব্যবস্থার অপব্যবহার হচ্ছে-ভূমিমন্ত্রী
ভূমিমন্ত্রী সাইফুজ্জামান চৌধুরী, এমপি

“জমি অধিগ্রহণে তিন গুণ ক্ষতিপূরণ দেওয়ার সিদ্ধান্তটি সরকারের অত্যন্ত সময়োপযোগী ও গণমুখী উদ্যোগ হলেও এর অপব্যবহার করা হচ্ছে”।

ভূমিমন্ত্রী সাইফুজ্জামান চৌধুরী, এমপি বুধবার সচিবালয়ে তাঁর নিজ দপ্তরে ভূমি জরিপ ও ভূমি অধিগ্রহণ সম্পর্কিত পৃথক দুটি সফটওয়্যার সিস্টেম অগ্রগতি উপস্থাপন (প্রেজেন্টেশন) পর্যবেক্ষণ করার পর সংশ্লিষ্ট কর্মকর্তাবৃন্দকে বিভিন্ন দিকনির্দেশনা দিতে গিয়ে এ কথা বলেন। এ সময় উপস্থিত ছিলেন ভূমি সচিব মোঃ মাক্‌ছুদুর রহমান পাটওয়ারী।



“উল্লেখ্য, জরিপ সম্পর্কিত এপ্লিকেশনে একই সিস্টেমে ম্যাপ ও খতিয়ান দেখা যাবে। ভূমি অধিগ্রহণ সম্পর্কিত সিস্টেমে জমির মালিক নিজ একাউন্ট থেকে ফাইল ট্র্যাকিং করতে পারবেন, এতে তাঁর হয়রানি কম হবে। ফলে, অধিগ্রহণের পুরো প্রক্রিয়ায় স্বচ্ছতা আসবে।

“কোনো এলাকায় ভূমি অধিগ্রহণের খবর পেলেই কিছু অসাধু চক্র যোগসাজশ করে ওই এলাকার জমি কিনে ঘরবাড়ি নির্মাণ করে। ফলে জমি অধিগ্রহণে সরকারের অতিরিক্ত ব্যয় হচ্ছে। প্রকল্প ব্যয় বৃদ্ধি পেয়ে দেশের সার্বিক অর্থনীতিতেও খারাপ প্রভাব পড়ছে। এ ছাড়া প্রকৃত মালিকরা বঞ্চিত হয়”। – বলেন সাইফুজ্জামান চৌধুরী।

“মন্ত্রী আরও বলেন, “এই অপকর্ম রোধ করতে ‘জমির মালিকানার সময়কাল’ ও ‘বসতবাড়ির ভূমির আয়তন নির্ধারণ’ সহ আরো কিছু ব্যবস্থা গ্রহণের চিন্তা করা হচ্ছে। প্রকৃত মালিকদের ক্ষতির হাত থেকে বাঁচানো এবং অর্থের অপব্যয় রোধ করতেই এ ব্যবস্থা নেওয়া হবে”।

“মন্ত্রী এ সময় আশা প্রকাশ করে বলেন, আগামীকাল (১০ অক্টোবর) হতে ভূমি সেবা হটলাইন ১৬১২২ চালু হলে জন ভোগান্তি অনেকাংশে লাঘব হবে।

“প্রেজেন্টেশনের সময় মন্ত্রীকে এপ্লিকেশন দুটির বিভিন্ন দিক নিয়ে সংশ্লিষ্ট কর্মকর্তাগণ অবহিত করেন। উল্লেখ্য, সংক্ষিপ্ত ব্যবহার শুরু হলেও এপ্লিকেশন দুটি এখনও এখনও উন্নয়ন পর্যায়ে আছে।

“সাইফুজ্জামান চৌধুরী এসময় অধিগ্রহণের অর্থ পরিশোধে ইলেকট্রনিক পেমেন্ট সিস্টেমের ব্যবহারের উপর গুরুত্বারোপ করেন যেন ক্ষতিপূরণের অর্থ পরিশোধ স্বচ্ছ হয়। এছাড়া, জরিপ কর্মকাণ্ডের লম্বা সময় সংক্ষেপিত করার ব্যাপারেও তিনি জোড় দেন।

“প্রেজেন্টেশন সেশনে আরও উপস্থিত ছিলেন অতিরিক্ত সচিব মোঃ আবদুল হক, আনিস মাহমুদ ও আতাউর রহমান, ভূমি রেকর্ড ও জরিপ অধিদপ্তরের মহাপরিচালক মোঃ তসলীমুল ইসলাম, ঢাকার জেলা-প্রশাসক আবু ছালেহ মোহাম্মদ ফেরদৌস খান সহ এপ্লিকেশন ডিজাইনে যুক্ত সংশ্লিষ্ট ভেন্ডরের প্রতিনিধি। প্রেজেন্টেশন সেশনে মন্ত্রীকে ব্রিফ করেন সংশ্লিষ্ট কর্মকর্তাগণ।

250

Development by: webnewsdesign.com