সর্বশেষ সংবাদ

x



চাষের জন্য বলদ না থাকায় স্ত্রী সন্তানকে দিয়ে জমিতে মঈ দিচ্ছেন অসহায় কৃষক আবু বক্কর

সোমবার, ১১ জানুয়ারি ২০২১ | ৪:৪৮ অপরাহ্ণ | 35 বার

চাষের জন্য বলদ না থাকায় স্ত্রী সন্তানকে দিয়ে জমিতে মঈ দিচ্ছেন অসহায় কৃষক আবু বক্কর
চাষের জন্য বলদ না থাকায় স্ত্রী সন্তানকে দিয়ে জমিতে মঈ দিচ্ছেন অসহায় কৃষক আবু বক্কর

প্রত্যেকটা মানুষের জীবনে একেকটা গল্প থাকে কখনও আনন্দ আবার কখনও বেদনার । কারো গল্পটা আবার বিষাদের । কি অদ্ভুত মানুষের জীবন । ঠিক তেমনি কষ্টে ভরা ময়মনসিংহের ভালুকা উপজেলার কৃষক আবু বক্কর সিদ্দিকের । ভাগ্যের কি নির্মম পরিহাস, এক সময় তার অনেক ধন সম্পত্তি থাকলেও এখন অল্প কিছু সম্পদের উপর ভরসা করে চলে তার জীবন । বর্তমানে তার আবাদী জমিতে চাষের জন্য নেই কোন বলদ বা গাভী । তাই তিনি স্ত্রী সন্তানকে দিয়ে মঈ টানিয়ে প্রস্তুত করছেন নিজের আবাদী জমির ধান ক্ষেত ।

(৭ই জানুয়ারী) বৃহস্পতিবার ভালুকা উপজেলার হবিরবাড়ি ইউনিয়নের ছোট কাশর এলাকায় গিয়ে সরেজমিন জানা যায়, যে কাজটি বলদ কিংবা ট্রাক্টর দিয়ে করানোর কথা সেই কাজটি করছেন গরীব কৃষক আবু বকর সিদ্দিকের স্ত্রী মমতাজ বেগম এবং ছেলে মাহাদী হাসান সুমন । তাদের দিয়ে ধান ক্ষেত প্রস্তুতের জন্য মঈ দেওয়া হচ্ছে । এ কাজে সহযোগিতা করছেন আবু বক্কর সিদ্দিক । সিদ্দিক বলেন, ৩৫ শতাংশ জমি ট্রাক্টর দিয়ে হালের কাজ করিয়েছি কিন্তু টাকার অভাবে কয়েকদিন ধরে ক্ষেতে মঈ দিতে পারছি না । অনেক জায়গায় টাকা ধার চেয়ে ব্যর্থ হয়েছি । পরে অবশেষে নিরুপায় হয়ে স্ত্রী সন্তানকে দিয়ে মঈ দেওয়ার কাজ চালাচ্ছি । ফসল ঘরে তোলা নিয়ে আশঙ্কায় আছি । ওয়ান শিসাং ইন্ডাষ্ট্রির বিষাক্ত পানির জন্য বিগত পাঁচ বছর ধরে ফসল ঘরে তুলতে পারছি না, তবুও ক্ষেত পতিত না রেখে অনেক স্বপ্ন আশা নিয়ে এবারও রোপনের জন্য প্রস্তুত করছি ।



আবু বকর সিদ্দিকের স্ত্রী মমতাজ বেগম বলেন, আমাদের ছয় (৬) সদস্যের সংসারে অর্থ উপার্জনের লোক নেই, আমাদের সংসারের সকলের খরচ আমার স্বামীর উপার্জনের উপর নির্ভর করে । তাই কিছু টাকা বাঁচানোর জন্য স্বামীকে সহযোগিতা করছি । তিনি আরো বলেন, আমার স্বামীর কাজে সহায়তা করা এটা আমার কোন লজ্জা নয় বরং আমি এটা নিয়ে অনেক গর্ববোধ করি ।

স্থানীয় দেলোয়ার হোসেন বলেন, ওয়ান শিসাং ইন্ডাষ্ট্রির বিষাক্ত পানি লাউতি খাল দিয়ে প্রবাহিত হয় । যখন মিলের বিষাক্ত পানি খালে ছাড়া হয় তখন সরু খাল দিয়ে পানি প্রবাহিত হতে না পেরে কৃষকের জমিতে উঠে যায় । যার ফলে এলাকার শতশত একর জমির ফসল নষ্ট হচ্ছে । কৃষক আবু বক্করে মতো অনেকেই কষ্ট করে ফসল রোপন করে কিন্তু কোন লাভ হয়নি । বিষাক্ত পানি পরিকল্পিত ভাবে ছাড়ার জন্য এলাকার লোকজন বিভিন্ন সময় মানববন্ধন করলেও প্রশাসনের টনক নড়েনি । ফসল নষ্টের পাশাপাশি রোগবালাইও বেড়েছে ।

এ বিষয়ে কথা বলতে জামিরদিয়া গ্রামে চীনাদের প্রতিষ্ঠিত ওয়ান শিসাং ইন্ডাষ্ট্রিতে মালিকের সাথে কথা বলতে গেলে, ফ্যাক্টরীর কর্মচারী আব্দুল মাজেদ খোকন বলেন, প্রতিষ্ঠানটির মালিক না থাকায় গণমাধ্যমের সামনে কেউ কথা বলতে পারবে না । তবে তিনি বলেন যে এটা সত্য তাদের ফ্যাক্টরীর বিষাক্ত বর্জ্যে কিছু ক্ষয় ক্ষতি হচ্ছে ।

আর্কাইভ

সোম মঙ্গল বুধ বৃহ শুক্র শনি রবি
 
১০
১১১২১৩১৪১৫১৬১৭
১৮১৯২০২১২২২৩২৪
২৫২৬২৭২৮২৯৩০৩১
মরহুম খােরশেদ আলম চৌধুরী স্মৃতি ব্যডমিন্টন টুর্নামেন্ট ২০-২১ ফাইনাল খেলা উদযাপিত!

Development by: webnewsdesign.com