বৃহস্পতিবার ৯ই ফেব্রুয়ারি, ২০২৩ খ্রিস্টাব্দ | ২৬শে মাঘ, ১৪২৯ বঙ্গাব্দ

শিরোনাম >>
শিরোনাম >>

কৃষি সাংবাদিকতায় আইএফএজে অর্থনৈতিক ফেলোশিপ পেলেন মানিক ও শাহীন

নিজস্ব প্রতিবেদক   |   বৃহস্পতিবার, ০১ ডিসেম্বর ২০২২ | প্রিন্ট

কৃষি সাংবাদিকতায় আইএফএজে অর্থনৈতিক ফেলোশিপ পেলেন মানিক ও শাহীন

কৃষি সাংবাদিকতায় আইএফএজে অর্থনৈতিক ফেলোশিপ পেলেন মানিক ও শাহীন

-সংগৃহীত

বিশ্ব খাদ্য সংকটের অন্যতম কারণগুলো মনুষ্য সৃষ্ট। বর্তমানে চলমান বৈশ্বিক খাদ্য সংকট ও অর্থনৈতিক মন্দাও মানুষের কারণেই তৈরি হয়েছে। করোনা মহামারির পর রাশিয়া-ইউক্রেন যুদ্ধ বিশ্বকে নতুন এক চ্যালেঞ্জের সামনে দাঁড় করিয়েছে। তবে যে দেশের অভ্যন্তরীণ উৎপাদন ভালো। এবং যারা খাদ্য রফতানি করে তাদের সংকটে পড়ার ঝুঁকি কম। আর যারা খাদ্যপণ্য আমদানির ওপর নির্ভরশীল তারাই সবার আগে খাদ্য সংকটে পড়ে। আবার যে সব দেশ খাদ্যপণ্য রপ্তানি করে বৈদেশিক মুদ্রা অর্জন করে সে সব দেশও কিছুটা সমস্যায় পড়ে। এমনকি ইউরোপ-আমেরিকার পাশাপাশি এশিয়ার যেসব দেশ নিজেদের খাদ্য নিজেরা উৎপাদন করে চাহিদা মেটায় তাদেরও খাদ্য সংকটে পড়ার ঝুঁকি কম।

কৃষি অর্থনৈতিক বিষয়ে সাংবাদিকতায় আন্তর্জাতিক ফেলোশিপ পেলেন বাংলাদেশী দুই সাংবাদিক। বাংলাদেশ প্রতিদিনের সিনিয়র রিপোর্টার মানিক মুনতাসির ও কালের কন্ঠের সিনিয়র রিপোর্টার সাহানোয়ার সাইদ শাহীনকে গত ২৮শে নভেম্বর ডেনমার্কের হার্নিং শহরের মেসেজসেন্টারে (এমসিএইচ) এ সনদ প্রদান করা হয়।

ফেলোশিপের সনদ ও আর্থিক মূল্যের ডামী তুলে দেন আন্তর্জাতিক ফেডারেশন অব এগ্রিকালচারাল জার্নালিস্ট (আইএফএজে) প্রেসিডেন্ট ও সুইডেনের খ্যাতনামা কৃষি সাংবাদিক লীনা জোহানসন।

আয়োজিত এই প্রদর্শনীতে ৫১ টি দেশ অংশ নিচ্ছে। প্রদর্শনীর উদ্বোধন করেন ডেনমার্কস্থ ইউক্রেনের রাষ্ট্রদূত মিখাইল ভিদোনিক, শুভেচ্ছা বক্তব্য দেন আয়োজক কমিটির প্রধান ও অ্যাগ্রোম্যাকের চেয়ারম্যান স্টেন এন্ডারসেন। ৩০শে নভেম্বর প্রদর্শনী শেষে আইএফএজের সম্মেলন অনুষ্ঠিত হবে। অনুষ্ঠানের প্রথম দিনে এ বছরের জন্য বিশ্বের ২১ জন শ্রেষ্ঠ খামারী, কৃষক ও কৃষি বিষয়ক সাংবাদিককে অ্যাগ্রোমেক অ্যাওয়ার্ড এবং ফেলোশিপ প্রদান করা হয়।

এদিকে অনুষ্ঠানের প্রথম দিন এই প্রদর্শনী ও সম্মেলন প্রতি দুই বছর অন্তর অনুষ্ঠিত হয়। অবশ্য করোনা মহামারীর কারণে গত ২০২০ এ অনুষ্ঠিত হয়নি৷ ফলে এবার চার বছর পর অনুষ্ঠিত হচ্ছে। এটি ৪২তম প্রদর্শনী। ২০১৮ সালে অনুষ্ঠিত সব শেষ প্রদর্শনীতেও ৫৪২টি প্রতিষ্ঠান ও কোম্পানি অংশ নেয়।

উল্লেখ্য এশিয়া, ইউরোপ, আমেরিকা, আফ্রিকা, অস্ট্রেলীয় অঞ্চলের বাছাই করা কৃষি অর্থনীতি বিষয়ক সাংবাদিকদের এ ফেলোশিপ দেয়া হয়েছে। এতে কৃষি আধুনিকীকরণ, খাদ্য প্রক্রিয়াজাত, কৃষিখামার, বায়োগ্যাস, ইকোসিস্টেম বিষয়ক বিভিন্ন যন্ত্রপাতি প্রদর্শন করা হচ্ছে।

ইকোসিস্টেমকে স্বাভাবিক রেখে অত্যাধুনিক যন্ত্রপাতির ব্যবহার ও রাসায়নিকের ব্যবহার কমিয়ে মাটির গুণগত মান ও স্বাস্থ্য রক্ষার প্রতি গুরুত্বারোপ করা হয় আয়োজনের বিভিন্ন সাইড ইভেন্টে।

ডেনমার্কের বায়োগ্যাস, ফার্মিং, ডেইরী, খাদ্য প্রক্রিয়াজাত, সংরক্ষণ, উৎপাদন পদ্ধতি ফেলোশিপপ্রাপ্ত সাংবাদিকদের সরেজমিন বিভিন্ন প্রকল্প ঘুরে দেখানো হচ্ছে।

মানিক মুনতাসির বাংলাদেশ প্রতিদিনে ১৩ বছর ধরে সিনিয়র রিপোর্টার হিসেবে কর্মরত৷ এর আগে ভোরের ডাক, যুগান্তরে কাজ করেছেন। গত ২০২০ সালে করোনা মহামারীতে ঝুঁকি নিয়ে দায়িত্ব পালনের জন্য আমেরিকান চেম্বার অব কমার্সের (অ্যামচেম) ফ্রন্টলাইনার অ্যাওয়ার্ড জিতেছেন। পেডরোলো সেরা কৃষি লেখক অ্যাওয়ার্ড জিতেন ২০১৪ সালে। পেশাগত কাজের পাশাপাশি তিনি ঢাকা রিপোর্টার্স ইউনিটির অর্থ সম্পাদক ছিলেন ২০১৭-২০১৮ সালে। তিনি এর পাশাপাশি সাহিত্যচর্চার সঙ্গে জড়িত। সাহানোয়ার সাইদ শাহীন কালের কন্ঠের আগে প্রায় এক যুগ বণিক বার্তায় সাংবাদিকতা করেছেন। জাহাঙ্গীরনগর বিশ্ববিদ্যালয়ের অর্থনীতি বিভাগ থেকে স্নাতক ও স্নাতকোত্তর সম্পন্ন করেছে। বর্তমানে তিনি বাংলাদেশ কৃষি সাংবাদিক ফোরামের সাধারণ সম্পাদকের দায়িত্ব পালন করছেন।

Facebook Comments Box
advertisement

Posted ১১:২১ পূর্বাহ্ণ | বৃহস্পতিবার, ০১ ডিসেম্বর ২০২২

dhakanewsexpress.com |

advertisement
advertisement
advertisement

এ বিভাগের আরও খবর

আর্কাইভ

মোঃ মাসুদ রানা হানিফ সম্পাদক