জনপ্রিয় সংবাদ

x

কৃষি মন্ত্রীর সাথে নাইজেরিয়ার কৃষি,প্রাণিসম্পদ ও মৎস্য মন্ত্রীর সাক্ষাৎ

বৃহস্পতিবার, ০৫ সেপ্টেম্বর ২০১৯ | ৮:১৮ অপরাহ্ণ | 19 বার

কৃষি মন্ত্রীর সাথে নাইজেরিয়ার কৃষি,প্রাণিসম্পদ ও মৎস্য মন্ত্রীর সাক্ষাৎ
কৃষি মন্ত্রীর সাথে নাইজেরিয়ার কৃষি,প্রাণিসম্পদ ও মৎস্য মন্ত্রীর সাক্ষাৎ

কৃষি মন্ত্রী ড.মো: আব্দুর রাজ্জাক এমপি মহোদয়ের সাথে মন্ত্রণালয় তাঁর অফিসকক্ষে নাইজেরিয়ার কৃষি,প্রাণিসম্পদ ও মৎস্য মন্ত্রী Mwangi kiunjuri    নের্তৃত্বে এক প্রতিনিধি দলের সাথে বৈঠক করেন। কৃষি মন্ত্রী ; কেনিয়া এবং বাংলাদেশ রাষ্ট্রদ্বয়ের মধ্যকার দ্বিপাক্ষিক সম্পর্ক।  দ্বিপাক্ষিক বাণিজ্য ও বিনিয়োগ সম্প্রসারণের জন্য কেনিয়া এবং বাংলাদেশ উভয়েই আগ্রহ প্রকাশ করেছে। বাংলাদেশ থেকে কেনিয়ার রপ্তানিকৃত পণ্যের মধ্যে পাট শীর্ষস্থান দখল করে রয়েছে কেনিয়া বাংলাদেশ থেকে ঔষধ আমদানি করছে। তাদের বাংলাদেশ হতে চামড়া জাত পণ্য আমদানির আহবান জানান তিনি। বৈঠকে দুই দেশের মধ্যে   কৃষি ও রপ্তানিরখাত নিয়ে কথা হয়।

কৃষি মন্ত্রী বলেন; বাংলাদেশ নদী মাতৃক দেশ। আমরা খাদ্যে স্বয়ংসম্পুর্ণতা অর্জন করেছি এখন আমাদের লক্ষ্য নিরাপদ ও পুষ্টিমান সমৃদ্ধ খাদ্য নিশ্চিত করা। এছাড়াও আধুনিক কৃষি ও বাণিজ্যিক কৃষির জন্য কাজ করে যাচ্ছে সরকার। বাংলাদেশ বিগত এক দশকে অর্থনৈতিক সামাজিক ও মানব উন্নয়নসহ প্রায় সবসুচকে সাফল্য অর্জন করেছে। এই সাফল্য টেকসই করাই বর্তমান সরকারের অন্যতম লক্ষ্য। এছাড়া মৎস্য ও প্রাণি খাতেরও অর্জন ভালো। আমাদের লক্ষ্য ২০৩০ সালের মধ্যে এসডিজি’র গোল অর্জন করা। আমরা ধীওে ধীওে উন্নত রাষ্ট্রের পথে এগীয়ে চলছি।

কেনিয়ার মন্ত্রী বলেন; কেনিয়া ও বাংলাদেশ  ভূমি গঠনে , সংস্কৃতিতে, ভাষায় এবং ইতিহাস ঐতিহ্যে সম্পুর্ণ আলাদা। তবুও দুই দেশই উন্নয়ন তালিকায় সর্বোচ্চ অগ্রাধিকার হিসেবে কৃষি, খাদ্য নিরাপত্তা ও পুষ্টিকে রেখেছে এবং উভয় দেশই স্বাধীনতার পর কৃষিতে বিরাট অগ্রগতি ঘটিয়েছে। কেনিয়ার খাদ্য ও কৃষি খাত এখন বিকাশমান, যা চা, কফি, ফল, সবজি ও ফুলের বদৌলতে অর্থনীতিতে প্রায় ৫০ ভাগ অবদান রেখে চলেছে। এছাড়া ভুট্টা এদেশে প্রচুর পরিমানে উৎপন্ন হয়।

উল্লেখ্য; কেনিয়ার কৃষক সমবায়ের দীর্ঘ ও সমৃদ্ধ ঐতিহ্য/ইতিহাস আছে যার শুরু স্বাধীনতার পূর্বে সেই ১৯৪০ সালে। শক্তিশালী ও প্রশাসনিক ব্যবস্থাপনা পদ্ধতি প্রতিষ্ঠা, সদস্যদের ব্যবসায়িক পরামর্শ, লটে বা একসঙ্গে কেনাবেচার সুযোগ সৃষ্টি এবং চাহিদার সঙ্গে খাপখাইয়ে চলার মতো প্রায়োগিক কৌশলসহ একটি সুসংগঠিত এবং পেশাদার স্বত্তা হিসেবে আবির্ভূত হতে কেনিয়ার কৃষক সংগঠনকে কয়েক দশক জুড়ে অনেক বাধা-বিপত্তি অতিক্রম করতে হয়েছে। বাংলাদেশে কৃষিখাতে যে অভূতপূর্ব সাফল্য অর্জন করেছে এর জন্য সরকার ও কৃষকদের ভূয়সী প্রশংসা করেন কেনিয়ার মন্ত্রী। কেনিয়ার মন্ত্রী বাংলাদেশের কৃষি মন্ত্রীকে কেনিয়া ভ্রমনের আহবান জানান।

প্রতিনিধি দলের  অন্যান্য সদস্যবৃন্দ ছিলেন কৃষি,প্রাণিসম্পদ ও মৎস্য মন্ত্রণালয়ের  Joseph Nguyo, Personal Assistant ; Caroline Gachuri,State Consel;  পররাষ্ট্র মন্ত্রণালয়ের Nicholas Irungu ; David Kariuki, India Embassy |

২০ বাংলাদেশিসহ ৯২ অবৈধ অভিবাসী গ্রেপ্তার মালয়েশিয়ায়

Development by: webnewsdesign.com