জনপ্রিয় সংবাদ

x

কিংসের পরাজয়, দাপুটে জয়ে শীর্ষে রংপুর রাইডার্স

মঙ্গলবার, ২৯ জানুয়ারি ২০১৯ | ১০:০৯ অপরাহ্ণ | 141 বার

কিংসের পরাজয়, দাপুটে জয়ে শীর্ষে রংপুর রাইডার্স
কিংসের পরাজয়, দাপুটে জয়ে শীর্ষে রংপুর রাইডার্স

১দিনের ব্যবধানে আবারও ঝড় দেখা গেল এবিডি ভিলিয়ার্সের ব্যাটে। আজ হিটিংয়ে তাকে ছাড়িয়ে যান আরেক প্রোটিয়া তারকা রাইলি রুশো।

অন্যদিকে রাজশাহী কিংসের পুঁজি ছিল কম। ক্রিস গেইলের ঘুম না ভাঙলেও ভিলিয়ার্স-রুশোর ব্যাটে কিংসদের সহজেই উড়িয়ে দিয়ে পয়েন্ট তালিকার শীর্ষে উঠে এল মাশরাফি বিন মুর্তজার দল। তবে ভিলিয়ার্স আজ আর দলকে জিতিয়ে ফিরতে পারেননি। মোহাম্মদ মিঠুন আর নাহিদুল ইসলামের ব্যাটে ৬ উইকেট আর ৮ বল হাতে রেখেই টানা দ্বিতীয় জয় তুলে নেয় রংপুর রাইডার্স।

জহুর আহমেদ চৌধুরী স্টেডিয়ামে মাঝারি টার্গেট তাড়ায় নেমে যথারীতি ব্যর্থ ক্রিস গেইল (১০)। মেহেদী মিরাজের বলে ক্যাচ দেন সৌম্য সরকারের হাতে। অপর ওপেনার অ্যালেক্স হেলস আজ বেশিদূর যেতে পারেননি। ১৫ বলে ১৬ রান করে কায়েস আহমেদের বলে বোল্ড হয়ে যান। এরপর গতকালের মতো আবারও ব্যাটে ঝড় তোলেন এবি ডি ভিলিয়ার্স।

আজ তার সঙ্গী রাইলি রুশো। তরতর করে এগিয়ে যায় রংপুরের ইনিংস। ৩৭ বলে হাফ সেঞ্চুরি পূরণ করেন চলতি আসরে এখন পর্যন্ত সর্বোচ্চ রানের মালিক রুশো।রংপুর যখন জয় থেকে মাত্র ১৭ রান দূরে, তখন কামরুল ইসলাম রাব্বির দারুণ একটা বলে বোল্ড হয়ে যান ৪৩ বলে ৫ চার ২ ছক্কায় ৫৫ রানের ইনিংস খেলা রাইলি রুশো। ভাঙে ৭১ রানের জুটি। পরের ওভারেই ২৭ বলে ৫ চার ২ ছক্কায় ৩৭ রান করা এবি ডি ভিলিয়ার্স আরাফাত সানির বলে ক্যাচ দিয়ে ফিরলে ম্যাচে উত্তেজনার সৃষ্টি হয়। তবে মুস্তাফিজের করা ১৯তম ওভারেই দলকে ৬ উইকেটে জিতিয়ে মাঠ ছাড়েন মোহাম্মদ মিঠুন (৪*) আর নাহিদুল ইসলাম (১১*)। ৭ ম্যাচে ১৪ পয়েন্ট নিয়ে আবারও শীর্ষে উঠে গেল মাশরাফি বিন মুর্তজার দল।

এর আগে টস জিতে ব্যাটিংয়ে নেমে নির্ধারিত ২০ ওভারে ৮ উইকেট হারিয়ে ১৪১ রান তুলল রাজশাহী কিংস। সাবধানী শুরুর পরেও ১১ বলে ১২ করা জনসন চার্লসকে মাশরাফির তালুবন্দি করে প্রথম আঘাত হানেন ফরহাদ রেজা। তিন নম্বরে নামা মুমিনুল হককে (৪) বোল্ড করে দেন নাহিদুল ইসলাম। এর মাঝেই কাঁধে ব্যথা পেয়ে মাঠ ছাড়তে হয় পেসার শফিউল ইসলামকে।

১৬ বলে ১৪ রান করা সৌম্য সরকার শহিদুলের বলে ক্যাচ দেন রুশোর হাতে। কিংস অধিনায়ককে মিরাজকে (৬) বোল্ড করে দেন নাজমুল ইসলাম অপু। রাজশাহী কিংসের ৫ম উইকেটের পতন হয় লরি ইভান্সের বিদায়ে। ৩১ বলে ৫ বাউন্ডারিতে ৩৫ রান করা ইভান্সকে নাহিদুলের তালুবন্দি করে দ্বিতীয় শিকার ধরেন শহিদুল। কিংসরা আর ঘুরে দাঁড়াতে পারেনি। অপুর দ্বিতীয় শিকার হয়ে ফিরেন ক্রিশ্চিয়ান জংকার (১৬)।

ফজলে মাহমুদ এবং কায়েস আহমেদের ব্যাটে কিছুটা রান ওঠে শেষটায়। শেষ ওভারে এই দুজনকে পরপর দুই বলে ফিরিয়ে হ্যাটট্রিক সম্ভাবনা জাগান ফরহাদ রেজা। যদিও সেটা শেষ পর্যন্ত হয়নি। শেষ পর্যন্ত নির্ধারিত ২০ ওভারে ৮ উইকেটে ১৪১ রান তুলতে সক্ষম হয় কিংসরা। ৩০ রানে ৩ উইকেট নিয়েছেন ফরহাদ রেজা। ২টি করে নিয়েছেন নাজমুল ইসলাম অপু এবং শহিদুল ইসলাম।

উল্লেখ্য, জহুর আহমেদ চৌধুরী স্টেডিয়ামে দিনের প্রথম ম্যাচে স্বাগতিক চিটাগং ভাইকিংসকে ৭ উইকেটের বড় ব্যবধানে হারিয়েছে ইমরুল কায়েসের কুমিল্লা ভিক্টোরিয়ান্স। ঘরের মাঠে এই নিয়ে টানা তৃতীয় ম্যাচ হারল মুশফিকুর রহিমের দল।

Development by: webnewsdesign.com