বৃহস্পতিবার ৯ই ফেব্রুয়ারি, ২০২৩ খ্রিস্টাব্দ | ২৬শে মাঘ, ১৪২৯ বঙ্গাব্দ

শিরোনাম >>
শিরোনাম >>

কাতার বিশ্বকাপে প্রমাণ দিলাম জাপানও পারে

নিজস্ব প্রতিবেদক   |   শুক্রবার, ০২ ডিসেম্বর ২০২২ | প্রিন্ট

কাতার বিশ্বকাপে প্রমাণ দিলাম জাপানও পারে

কাতার বিশ্বকাপে প্রমাণ দিলাম জাপানও পারে

-সংগৃহীত

কাতার বিশ্বকাপে ইতিহাস গড়েছে জাপান। ইতিহাস গড়েছেন ২৪ বছরের জাপানি তরুণ তারকা রিতসু দোয়ান। এক বিশ্বকাপে দুই বিশ্ব চ্যাম্পিয়নকে হারিয়েছে জাপান। দলের জয়ে প্রধান ভূমিকায় রিতসু দোয়ান। জার্মানি ও স্পেনের বিপক্ষে প্রায় বলে-কয়েই একটি করে গোল করেছেন তিনি। চারবারের বিশ্ব চ্যাম্পিয়ন জার্মানি এবারের বিশ্বকাপের অন্যতম ফেবারিটও ছিল। কিন্তু তাদের বিদায় নিতে হয়েছে। ২০১০ সালের বিশ্ব চ্যাম্পিয়ন স্পেন নকআউট পর্ব নিশ্চিত করলেও গ্রুপে দ্বিতীয় হয়েছে। জাপান দুই চ্যাম্পিয়নকে হারিয়ে গ্রুপসেরা হয়েছে। কাতারের বিখ্যাত ক্লাব আল সাদের এক নম্বর ট্রেনিং ফ্যাসিলিটিতে অনুশীলন করছে জাপান। সেখানেই বাংলাদেশ প্রতিদিনের সঙ্গে কিছুক্ষণ আলাপ করেন ‘জাপানের হিরো’ রিতসু দোয়ান। তিনি জার্মানি এবং স্পেনের বিপক্ষে গোল নিয়ে কথা বলেছেন। জার্মান বুন্দেসলিগার ক্লাব ফ্রেইবার্গে খেলা এই তরুণ তারকা কথা বলেছেন জাপানের ফুটবল নিয়েও। জার্মানির বিপক্ষে গোলের পর কী ভাবছিলেন? : বিশ্বকাপে আসার আগে জার্মানিতে মানুষ বলত, জাপানের বিপক্ষে আমাদের ম্যাচটা সহজ হবে। সহজেই জিতে যাব আমরা। এসব শোনার সময় আমি তাদের তিক্ত এক হাসি উপহার দিতাম। নিজেকে বলতাম, তাদের থামিয়ে দেওয়ার সবচেয়ে ভালো পদ্ধতি হলো এমন এক ফল (জার্মানির বিপক্ষে জয়)। আমি খুশি যে আমরা তাদের হারাতে পেরেছি। আরও বেশি খুশি যে আমি গোল করতে পেরেছি। তাদের উচিত জবাব দিতে পেরেছি। গোলটা করে আমি অনেক উত্তেজিত হয়ে পড়েছিলাম। এটা আমার জীবনের অন্যতম সেরা প্রাপ্তি। এই ম্যাচটা জিতে আমরা কোনো ইতিহাস গড়িনি ঠিক, তবে এটা তো ঐতিহাসিক এক জয়।

স্পেনের বিপক্ষে ম্যাচের আগে কি গত বছরের অলিম্পিকের কথা মনে পড়ছিল? টোকিওতে অনুষ্ঠিত গত অলিম্পিকে সেমিফাইনালে আমরা স্পেনের কাছে হেরে যাই (১-০)। ওই দলে আমিও ছিলাম। সেই পরাজয়ের ঘটনা আমাদের আরও বেশি আত্মবিশ্বাসী করেছে স্পেনের বিপক্ষে ভালো ফুটবল খেলতে। আমরা জয় পেয়েছি। অনেকেই এ ঘটনাকে মিরাকল বলবে। তবে আমার কাছে জিজ্ঞেস করলে বলব, এটা ঘটারই ছিল। কারণ, আমরা স্পেনের ফুটবল সম্পর্কে ভালো জানতাম। তাদের ট্যাকটিকস জানা থাকায় তা কাজে দিয়েছে। আর দলের সবাই নিজেদের সেরা ফুটবলটাই খেলেছে। জাপানের ফুটবলকে কোথায় দেখতে চান? : আমাদের দেশের ফুটবল আগের চেয়ে অনেক এগিয়েছে। অবকাঠামোগত উন্নয়ন হয়েছে অনেক। ভালোমানের ফুটবলার উঠে আসছে। বর্তমানে এশিয়ানদের মধ্যে আমাদের ফুটবল খুব ভালো স্থানে আছে। তবে আমরা আরও অনেক দূর এগিয়ে যেতে চাই। বিশ্বকাপে আরও ভালো কিছু করতে চাই।

Facebook Comments Box
advertisement

Posted ১০:২৩ অপরাহ্ণ | শুক্রবার, ০২ ডিসেম্বর ২০২২

dhakanewsexpress.com |

advertisement
advertisement
advertisement

এ বিভাগের আরও খবর

আর্কাইভ

মোঃ মাসুদ রানা হানিফ সম্পাদক