শুক্রবার ৭ই অক্টোবর, ২০২২ খ্রিস্টাব্দ | ২২শে আশ্বিন, ১৪২৯ বঙ্গাব্দ

মানবতার জন্য যিনি কাজের ফাঁকে সবসময় কাজ করে চলেছেন

আর হুতেরে চাইতাম আইছিঃ (আমার ছেলেকে দেখতে আসছি)

নিজস্ব প্রতিবেদক   |   রবিবার, ০৭ আগস্ট ২০২২ | প্রিন্ট

আর হুতেরে চাইতাম আইছিঃ (আমার ছেলেকে দেখতে আসছি)

এস এম কামরুল হাসান-পিপিএম মাইজদী, নোয়াখালী

-সংগৃহীত

মানবতা এখনও হারিয়ে যায়নি । সমাজে এমন কিছু লোক আছে বলেই সমাজের অবহেলিত মানুষ গুলো আজ একবেলা খেতে পারে । তেমনই একজন মানবতার ফেরিওয়ালা আমাদের সকলের পরিচিত, যিনি কাজ করে চলেছেন এমনই মানুষের জন্য । তিনি এস এম কামরুল হাসান পিপিএম, মাইজদী, নোয়াখালী ।

তার ব্যক্তিগত ফেইজবুক পেইজ থেকে একটি পোষ্ট পাঠকদের জন্য তুলেধরা হলো :

ডিউটি শেষ করে রুমে যাচ্ছি , হঠাৎ চোখ গেলো মা খুব মজা করে একটা আম খাচ্ছে ফুটপাতে বসে বসে ,ময়লার স্তুপেরপাশে । মনে হলো কোন দোকানদার ফেলে গেছে । যেহেতু রিক্সায় ছিলাম , তাই রিক্সাওয়ালাকে বল্লাম রিক্সাটা আবার পুর্তভবনের সামনে নিয়ে চলো । রিক্সা থেকে নেমে মা টার কাছে যেতেই কেমন যেন হয়ে গেলো,বল্লাম মা এই বছর কি আম খাওয়া হয়নি ?বল্লেন খাইছি বাবা এমন দোকানদার রা ফেলে দিলে আমি একটু ভালোগুলো খুঁজে খাই ,কথাগুলো শুনে মনের অজান্তেই চোখে পানি চলে এলো, বল্লাম চলো আমার সাথে , কোন মতেই রিক্সায় উঠবে না , বাবা আমার কাপড়চোপড় ময়লা বল্লাম সমস্যা নেই , একটু জোড়াজুড়ি করে তুল্লাম ,বড় মসজিদ মোড়ে নিয়ে বল্লাম কোন আম তোমার ভালো লাগে বলো , বল্লেন একটা হলেই হবে , বল্লাম বড়গুলো নিয়ে দিবো , বল্লো না এইগুলারতো অনেক দাম , বল্লাম দাম নিয়ে তোমার চিন্তা করতে হবে না ,চুপ করে রইলেন বল্লাম পাঁচ কেজি আম দিতে ,সাথে সাথে মা বল্লেন না রে বাবা এতোগুলো নষ্ট হবে, বল্লাম কতটুকু নিবা ,বল্লো দুই, তিন কেজি হলেই হবে , লাগলে আবার নিবো । বল্লাম তিন কেজি আম দিতে ,দোকানদার তিন কেজি আম দিলেন , টাকা টা শোধ করে বল্লাম মা আমি ট্রাফিক অফিসে বসি, তোমার যখন কিছু খেতে মন চায়বে চলে আসবা আমি চেষ্টা করবো কিনে দিতে ।

সেইদিন দুপুরে মা টা চলে গেলেন ,পরে সত্যিই মা টা আবার আমাকে দেখতে ট্রাফিক অফিসের গেইটে এসে দাড়িয়ে ছিলেন , আমাকে চিনতে পারছিলেন না কারন আমি তখন সিভিল ড্রেসে ছিলাম । মা কেমন আছেন ,বলতেই কন্ঠশুনে চিনে পেলেছেন বল্লো বাবারে – আর হুতেরে চাইতাম আইছি ( আমার ছেলেকে দেখতে আসছি) । বল্লাম কিছু খাবেন বল্লেন না রে বাবা । পরে রিক্সায় করে বাড়িতে পাঠিয়ে দিলাম ।

লিখাটা লিখার উদ্দেশ্য হলো ,বাসায় কত ফল আমরা খেতে না পেরে ফেলে দিই কিংবা নষ্ট করে ফেলি , তা চায়লেই আমরা এমন বাবা মা গুলোকে দিতে পারি বা রাস্তায় যদি দেখি দুই এক কেজি কিনে দিতে পারি ,এতে তাঁরা যে কি পরিমান খুশী হবে তা যারা করবেন তারাই বুঝবেন । কত অল্পতে তাঁরা তৃপ্ত যা আপনি কাছে না গেলে বুঝবেন না । মা টা অসুস্থ্য ,সবাই মা টার জন্য দোয়া করবেন । দেখি পরেরবার আসতে বলেছি ডাকতার দেখাবো ।

জয় হোক মানবতার , জাগ্রত হোক মানবিকতা, জয় হোক মানুষের।

এস এম কামরুল হাসান পিপিএম
বর্তমান কর্মস্থল : চাঁদপুর

Facebook Comments Box
advertisement

Posted ৭:২৮ অপরাহ্ণ | রবিবার, ০৭ আগস্ট ২০২২

dhakanewsexpress.com |

advertisement
advertisement
advertisement

আর্কাইভ

শনি রবি সোম মঙ্গল বুধ বৃহ শুক্র
১০১১১২১৩১৪
১৫১৬১৭১৮১৯২০২১
২২২৩২৪২৫২৬২৭২৮
২৯৩০৩১  
মোঃ মাসুদ রানা হানিফ সম্পাদক