Rz Rasel
০ দিন পূর্বে
10:31 am
বিনা অনুমতিতে শহীদ কাদরীর বই প্রকাশনা বন্ধের দাবিতে মানববন্ধন
১ দিন পূর্বে
4:03 pm
পুরুষের অনুমতি ছাড়াই এবার ব্যবসা করবে সৌদি নারীরা
১ দিন পূর্বে
3:18 pm
চ্যাম্পিয়নস লিগের গুরুত্বপূর্ণ ম্যাচে হিগুয়েনকে নিয়ে শঙ্কা
১ দিন পূর্বে
3:12 pm
শিক্ষার্থী নয়, ক্লাসরুমে ছাগল ঘুরতে দেখলেন শিক্ষামন্ত্রী!
১ দিন পূর্বে
3:10 pm
নেটদুনিয়ায় আগুন ধরাল ক্যাটরিনার দুঃসাহসিক ছবি!
১ দিন পূর্বে
3:09 pm
নিজের নাম্বার লুকিয়ে ব্যবহার করুন হোয়্যাটসঅ্যাপ
১ দিন পূর্বে
3:07 pm
চোখের নিচের কালো দাগ সমস্যায় করণীয়
১ দিন পূর্বে
3:05 pm
বলিউডে আসছে আরেক তারকা সন্তান
১ দিন পূর্বে
3:04 pm
যে কারণে ডান দিকেই ঘোরে সব ঘড়ির কাঁটা!
১ দিন পূর্বে
3:02 pm
সঙ্গী অসচ্চরিত্রের কিনা বুঝবেন যে ৪টি উপায়ে
১ দিন পূর্বে
2:58 pm
মালয়েশিয়ায় ১৭ বাংলাদেশি আটক
১ দিন পূর্বে
2:38 pm
যৌন মিলন করলে মেয়েরা বেশি মজা পায়!
১ দিন পূর্বে
2:30 pm
ভোরে যৌন মিলন করলে কি হয় জানেন?
১ দিন পূর্বে
2:22 pm
বাড়তি মেদ কমাবে যৌন মিলন
১ দিন পূর্বে
2:14 pm
যৌন মিলন মধুর করতে
১ দিন পূর্বে
2:01 pm
এখনও পালিয়ে আসছে রোহিঙ্গারা
১ দিন পূর্বে
1:52 pm
২১ ফেব্রুয়ারিতে চার স্তরের নিরাপত্তা থাকবে: ডিএমপি কমিশনার
১ দিন পূর্বে
1:27 pm
সিংহীর কোলে আদরে বড় হচ্ছে হরিণ শাবক!
১ দিন পূর্বে
1:14 pm
ন্যূনতম আইনি সুযোগ-সুবিধা পাচ্ছেন না খালেদা: ফখরুল
১ দিন পূর্বে
1:11 pm
স্ক্যানার মেশিনে ঢুকে পড়লেন চীনা নারী!
১ দিন পূর্বে
1:07 pm
৪জি যুগে বাংলাদেশের অভিষেক আজ
১ দিন পূর্বে
1:05 pm
স্মার্টফোনে পর্ন! সতর্ক থাকুন
১ দিন পূর্বে
1:04 pm
‘নিয়ন্ত্রিত বোলিংয়ে ফলাফল ভিন্ন হতে পারতো’
১ দিন পূর্বে
1:01 pm
সোশ্যাল মিডিয়ায় উত্তাপ ছড়াচ্ছে ক্যাটরিনার দুঃসাহসিক ছবি
১ দিন পূর্বে
1:00 pm
মমর ‘উল্টো পিঠে ভালবাসা’
কাঁদছে বাংলাদেশ জাতীয়তাবাদ ও কাঁদছে ১৮ কোটি জনগন

শুন এক নদীর কাহিনী , সে নদীর স্রোত যে ছিল, জোয়ার ছিল তবুও নদী পেলনা যে মোহনার দেখা , তাই তো নদী বুক ভাসালো কেঁদে কেঁদে একা- তাই আজ সারা বাংলাদেশী ও বাংলাদেশ জাতীয়তাবাদ কাঁদছে, কাঁদছে ১৮ কোটি জনগন| একটি জলন্ত আগ্নেয়গিরি ও কিংবদন্তির জানালায় দাড়িয়ে মেজর জিয়া দিয়েছিলেন সেদিন স্বাধীনতার ঘোষনা | সেদিনের সেই সাহসী জিয়াই আজকের বাংলাদেশের স্বাধীনতার ঘোষক ২৫ মার্চের কালরাত্রিতে ১৯৭১ সালের ২৫শে মার্চ পাকিস্তানীহানাদার বাহিনী যখন এদেশের নিরস্ত্র মানুষের ওপর বর্বরের মতো ঘৃণ্য হামলা চালায় তখন এর আকস্মিকতায় দিশেহারা হয়ে পড়ে সবোর্স্তরের জনগণ।

এই দিশেহারা জাতিকে সেদিন একটি ঘোষনার মাধ্যমে জাতির ঐক্য এবং প্রাণ শক্তি ফিরিয়ে দিয়েছিলেন | আজকের সেই গর্বিত জিয়া | স্বাধীনতা যুদ্ধে জিয়াউর রহমান যুদ্ধের পরিক্লপনা ও তার বাস্তবায়নে গুরুত্বপূর্ণ ভুমিকা পালন করেন। ১৯৭১ এর জুন পর্যন্ত ১ নং সেক্টর কমান্ডার ও তারপর জেড-ফোর্সের প্রধান হিসেবেতিনি যুদ্ধে অংশগ্রহন করেন। স্বাধীনতা যুদ্ধে বীরত্বে জন্য তাকে বীর উত্তম উপাধিতে ভূষিত করা হয়।

 কিন্তু আজ দুঃখভারাক্রান্ত হৃদয় নিয়ে বলতে হয় জিয়াউর রহমার নাকি মুক্তিযোদ্ধা ছিলেন না তাহলে তিনি কিভাবে বীরোত্তম উপাধীতে ভূষিত হয়েছিলেন ? জাতির কাছে প্রশ্ন রাখতে চাই | শহীদ প্রেসিডেন্ট জিয়াউর রহমানের পদক জাতীয় যাদুঘর থেকে সড়িয়ে নেওয়া হয় | এর চেয়ে লজ্জাজনক ঘটনা আর কি হতে পারে ? দেশও জাতীয় প্রয়োজনে এ ক্রান্তি লগ্নে যে আদর্শের বীজ বপন করে গেছেন যিনি ছিলেন বাংলার রাখাল রাজা তাইতো বাংলার রাখাল রাজাদের জন্য বিদায়ী সনদ হিসাবে অকাট্য দলিলরুপে বিএনপিকে রেখে গেছেন |

এখন শুধু দরকার দলের নেতা কর্মীদের ঐক্যের মাধ্যমে তার আদর্শকে লালনকরে গঠনতন্ত্র মেনে ১৯ দফা কর্মসূচী বাস্তবায়নের মাধ্যমে ভিশন ২০৩০ কে প্রতিফলন ঘটানো | তখন সারা বিশ্ব অবাক দৃষ্টিতে তাকিয়ে থাকবে | আর তা করা সম্ভব বিএনপির চেয়ারপারসন বেগম খালেদা জিয়ার নেতৃত্ত্ব আর উত্তসুরীসুযোগ্য নেতা তারুন্যর অহংকার জনাব তারেক রহমানের দিকনির্দেশনায় সম্ভব গণতন্ত্রকে পুণঃপ্রতিষ্ঠা করে গন মানুষের হৃদয়ের অগ্নিঝড়া দিনথেকে মুক্ত করে বাকস্বাধীনতাকে ফিরিয়ে দিয়ে বিএনপির আদশের আস্হা মানুষের হৃদয়ে স্হান করে নেওয়া এটাই হোক ২০১৮ সালে শহীদ রাস্ট্রপতি বাংলাদেশের প্রথম প্রসিডেন্ট জনাব জিয়াউর রহমানের ৮২ তম জন্মদিনের প্রত্যয় এবং প্রতিজ্ঞা | ৭১ থেকে ৮১মাত্র দশটি বছর; মেজর জিয়া থেকে রাষ্ট্রপতি জিয়া। ৩৫ বছরে স্বাধীনতার ঘোষণা,৩৬ বছরে স্বাধীনতা অর্জন এবং বীরউত্তম উপাধি লাভ ৩৯ বছরে সেনাবাহিনী প্রধান, ৪১ বছরে রাষ্ট্র প্রধান এবং ৪৫ বছরে লক্ষ কোটি মানুষকে কাঁদিয়ে চিরবিদায়।

সৌভাগ্যের এই ক্ষণ জন্মা মহানায়ক ২৫ মার্চ ১৯৭১হতে ৩০ মে ১৯৮১ পর্যন্ত দশ বছরে প্রতিটি দিনকে বিভিন্ন পর্যায়ে ও ধাপে কাজে লাগিয়ে একটি আত্ম নির্ভরশীল দেশ গঠনে নিজেকে অকাতরে নিবেদন করেন।জাতীয়তাবাদী আদর্শ আজ জাতীয় জীবনে অপরিহার্য হয়ে দাঁড়িয়েছে | এক জিয়ালোকান্তরে লক্ষ জিয়া সারা বিশ্বে কারন সে আন্তর্জাতিক ভাবে জয় করে নিয়েছিল সুসম্পর্ক গড়ে তুলেছিল |

আন্তজাতিক অঙ্গনে বিদেশের কর্মসস্হান আর কৃষি খাতে যে উন্ণয়ন এনেছেন তা আজকের বালাদেশ শ্রদ্ধাভরে স্মরণ করে | তার সময়মুসলিম বিশ্বের সাথে বাংলাদেশের সম্পর্ক উন্নত হয়। ব্যপক বিস্তৃত হয় বানিজ্য নেটওয়ার্ক।

সৌদি আরবের সাথে যে সম্পর্ক গড়ে গেছেন তা বিরল | সৌদি বাদশাহ জন্য নেওয়া উপহার ছিল পৃথিবীর সর্বকালের সেরা উপহার | মৃত্যু জিয়ারজানাজায় জনসমাগম নয় একজন জীবন্ত জিয়ার চেয়ে একজন শহীদ জিয়া অনেক বেশী শক্তিশালী এবং তার আদর্শের আরেকটি রক্ত কনিকার নাম জাতীয়তাবাদী আদর্শের সৈনিকের মনোবল |

  লেখক : শামীমা আক্তার রুবী সভানেত্রী জাতীয়তাবাদী নাগরিক পরিষদ, ফ্রান্স।