Rz Rasel
১ দিন পূর্বে
6:05 pm
রাবিতে স্থগিতকৃত দশম সমাবর্তন মার্চে
২ দিন পূর্বে
11:56 pm
‘মৃত্তিকা প্রতিবন্ধীবান্ধব সাংবাদিকতা অ্যাওয়ার্ড’ পেলেন ভৈরবের সুমন মোল্লা
২ দিন পূর্বে
11:48 pm
ঢাকা আন্তর্জাতিক বাণিজ্য মেলা ২০১৮-এ অপো এফ ৫ বিজয়ীদের নাম ঘোষণা
২ দিন পূর্বে
11:43 pm
মোরেলগঞ্জে,শরণখোলায় কমিউনিটি ক্লিনিক কর্মীদের তিন দিনব্যাপী অবস্থান কর্মসূচি
২ দিন পূর্বে
11:39 pm
শ্রীমঙ্গলে জাতীয় শিক্ষা সপ্তাহের সমাপনী ও পুরস্কার বিতরণ
২ দিন পূর্বে
11:28 pm
তানোরে স্কুল ছাত্রীর আত্মহত্যা
২ দিন পূর্বে
11:23 pm
তানোরে শিশুদের শীতবস্ত্র বিতরণ করলেন বিভাগীয় কমিশনার
২ দিন পূর্বে
11:16 pm
বৈষম্যহীন শিক্ষা ব্যবস্থা ও অসাম্প্রদায়িক,গণতান্ত্রিক দেশ গড়ার কারিগর ছিলেন শহীদ আসাদ
২ দিন পূর্বে
10:53 pm
প্রেমিকের সঙ্গে শারীরিক সম্পর্ক ইনস্টাগ্রামে লাইভ, তারপর…
২ দিন পূর্বে
8:09 pm
এই কলগার্লের জন্যই নাকি পদচ্যুত হয়েছিলেন প্রধানমন্ত্রী
২ দিন পূর্বে
8:07 pm
২০ প্রেতাত্মার সঙ্গে ‘যৌন সম্পর্ক’ এই ব্রিটিশ যুবতীর!
২ দিন পূর্বে
7:40 pm
অন্তরঙ্গ সময়ে টিভির নেশায় বুঁদ প্রেমিকা, ফলাফল…!
২ দিন পূর্বে
5:58 pm
মা হচ্ছেন প্রীতি জিনতা!
২ দিন পূর্বে
5:33 pm
খরচ বাঁচাতে ৮ জোড়া প্যান্ট ও ১০ জামা পরে বিমানবন্দরে যুবক
২ দিন পূর্বে
5:22 pm
‘বিএনপির কোনো নীতি আদর্শ নেই’
২ দিন পূর্বে
5:19 pm
যে ৮টি উপকারে আসতে পারে ফিটকিরি
২ দিন পূর্বে
5:17 pm
অমিতাভ ও মাধুরীদের সারিতে সানি লিওন
২ দিন পূর্বে
5:10 pm
ভারত বিরাটের ওপর অতিরিক্ত নির্ভরশীল : রাবাদা
২ দিন পূর্বে
5:08 pm
অবশেষে ঢেকে দেওয়া হল দীপিকার উন্মুক্ত পেট (ভিডিও)
২ দিন পূর্বে
5:05 pm
আসামে ভূমিকম্পের আঘাত
২ দিন পূর্বে
5:00 pm
রেডিওতে বাংরেজি বন্ধের নির্দেশ দিলেন তারানা
২ দিন পূর্বে
4:50 pm
চলন্ত গাড়ির জানালার বাইরে টপলেস নারী! হঠাৎ…
২ দিন পূর্বে
4:46 pm
বিশ্বে প্রথমবারের মতো চালু হলো পুতুলের যৌনপল্লী!(ভিডিও)
২ দিন পূর্বে
4:43 pm
এবার সন্তানের জন্ম দেবে সেক্স ডল ‘সামান্তা’
২ দিন পূর্বে
4:34 pm
দুর্বল হৃদয়ের জন্য নয় এই ৫ মিনিটের ভিডিও !
তানোরে হাড় কাঁপানো শীতকে পিছনে ফেলে চরম ব্যস্ত বোরো চাষে শ্রমিকরা

শীতের শুরুতে হাড় কাঁপানো শীত ও কুয়াশা কোন কিছুই তাদেরকে আটকিয়ে রাখতে পারেনি বাড়ীতে। পোষের হাড় কাপানো শীতকে অতিক্রম করে বোরো চাষের জন্য চরম ব্যস্ত হয়ে পড়েছেন বরেন্দ্র অঞ্চল নামে পরিচিত রাজশাহী জেলার তানোর উপজেলার কৃষি শ্রমিকরা। তাদের চোখে নেই ঘুম, শীতকে গরম মনে করে নেমে পড়েছে বোরো চাষের জন্য। উপজেলার বিভিন্ন মাঠে গিয়ে দেখা যায় মাঠের পর মাঠ কুয়াশার ও কনকনে হাড় কাপানো শীতের মধ্যে কৃষি শ্রমিকরা জমি রোপন করছেন। কারণ সময় চলে গেলে মিলবে না সঠিক সময়ে ধান উত্তোলন।

দেখা গেছে, তানোর বিলকুমারী বিলে আমশো, গুবির পাড়া,ধানতৈড়,চাপড়া মাঠ জুড়ে ও উপজেলার কলমা, দরগাডাঙ্গা কামারগাঁ ইউপি’র হাতিশাইল, পাড়িশো, ও মাদারীপুর মাঠ সহ উপজেলার বিভিন্ন মাঠে চলছে ব্যাপক হারে বোরো চাষ। অনেকে আমন ধান উত্তোলন করে চাষ করেছেন আলু।

যারা আলু চাষ করেন নি তারা বোরো চাষের জন্য আগাম থেকেই চরম ব্যস্ত হয়ে পড়েছেন। মাঠে কথা হয় চাষি আনসার আলীর সাথে। তিনি জানান, সে এবার ৫ বিঘা জমিতে বোরো চাষ করবে। বিঘা প্রতি ৬ জন করে কৃষি শ্রমিক লাগছে। সে হিসাবে ৫ বিঘা জমিতে ৩০ জন শ্রমিকের প্রয়োজন। একজন শ্রমিকের মূল্য দিতে হচ্ছে ৩শ’ টাকা। ৩০ জন শ্রমিকের মজুরী বাবদ দিতে হচ্ছে ৯ হাজার টাকা।

চাষিরা জানায়, বিঘা প্রতি পটাশ ১৫ সের, ফলন ভালো পেতে এক বিঘায় ১০০০ টাকায় ব্রজেন, থিয়োভিট, ম্যাগা, ম্যাজমা দিচ্ছেন এবং প্রতি বিঘায় ১০০০ টাকার বিষ ও সেচ খরচ হারে বিঘা প্রতি ১১০০, জমি চাষ খরচ বিঘা প্রতি ১০০০ টাকা করে লাগছে। কথা হয় জমি রোপন করতে আশা শ্রমিক সাদ্দামের সাথে।

তিনি জানান, সূর্য উঠার আগেই কনকনে শীতে বীজতলার চারা তোলার জন্যে নেমে পড়তে হচ্ছে পানিতে। মন কখনো চাইনা এত ঠান্ডায় ভোর বেলায় পানিতে নামতে। কিন্তু কোন উপায় নেই। পেটে ভাত দিতে হবে, পরণে কাপড় দিতে হবে, পরিচালনা করতে হবে ছেলে মেয়েদের নিয়ে সংসার।

একদিন কাজ না করলে পেটে জুটবে না ভাত। শুধু সাদ্দাম নয়, এমন কথা জানায় বাবু, সালাউদ্দিন সহ শত শত শ্রমিক। উপজেলা কৃষি অফিস সূত্রে জানা যায়, এবার উপজেলা জুড়ে বোরো চাষের জমির লক্ষ্যমাত্রা ধরা হয়েছে ১৪হাজার৫০০ হেক্টর। এ পর্যন্ত প্রায় ৫৫ হেক্টর জমিতে চারা রোপন করা হয়েছে। কৃষি কর্মকর্তা শফিকুল ইসলাম জানান, আলু চাষাবাদ করেছেন যারা তারা আলু উত্তোলনের পর বোরো চাষ করবেন। যারা আমন ধান কেটে আলু চাষ করেন নি সেসব জমির বেশির ভাগ কৃষকরাই বোরো চারা রোপন করে ফেলেছেন। আশা করছি লক্ষ্যমাত্রা পার হয়ে যাবে।