Rz Rasel
০ দিন পূর্বে
1:52 pm
রাজ্জাকের ৫০০ উইকেট কীর্তি!
০ দিন পূর্বে
1:33 pm
ট্রাম্পের ‘গার্লফ্রেন্ডের’ লম্বা তালিকা ফাঁস
০ দিন পূর্বে
1:31 pm
১২০০ নারীকে নিয়েছেন, অতঃপর…
০ দিন পূর্বে
1:30 pm
ঘুম থেকে ওঠার পর যা করবেন না
০ দিন পূর্বে
1:29 pm
প্রণব মুখার্জীকে সাকিবের উপহার
০ দিন পূর্বে
1:27 pm
‘হানিমুন’ এলো যেভাবে…
০ দিন পূর্বে
1:26 pm
এবার ভেঙে গেল সিদ্ধার্থ-আলিয়ার সম্পর্ক!
০ দিন পূর্বে
1:25 pm
ইরফান-তিশার ‘চশমায় লেগে থাকা ভালোবাসা’
০ দিন পূর্বে
1:21 pm
মাকড়সার নাম ‘হ্যারি পটার’!
০ দিন পূর্বে
1:19 pm
হাতে পেঁয়াজের গন্ধ দূর করবেন যেভাবে
০ দিন পূর্বে
1:16 pm
আনারসের ভেতরে শত শত কেজি কোকেইন!
০ দিন পূর্বে
1:14 pm
বার্সেলোনার যে খেলোয়াড়কে বেচে দিতে চান মেসি
০ দিন পূর্বে
1:07 pm
খাগড়াছড়িতে এশিয়ান টিভির ৫ম বর্ষপূর্তি উদযাপিত
০ দিন পূর্বে
1:06 pm
এবার প্রভাসের নায়িকা হচ্ছেন দীপিকা!
০ দিন পূর্বে
12:57 pm
পঞ্চগড়ে আবারো বেড়েছে শীতের প্রকোপ
০ দিন পূর্বে
12:18 pm
গঠনতন্ত্র অনুযায়ী আ’লীগের ধর্মবিষয়ক উপকমিটি হওয়া উচিত
০ দিন পূর্বে
12:14 pm
শুধু ‘পাকিস্তানি’ হওয়ায় যত অপমান
০ দিন পূর্বে
12:12 pm
যখন তখন ঘুমিয়ে পড়ছেন, বড় কোনও অসুখ নয়তো!
০ দিন পূর্বে
12:07 pm
সেলফি দেখেই খুনি চিহ্নিত করলো পুলিশ
০ দিন পূর্বে
12:05 pm
ফোনের মারাত্মক ক্ষতি করে যে ১০ অ্যাপ!
০ দিন পূর্বে
12:03 pm
‘মা’ হওয়ার পর জীবনই পাল্টে গেল সানি লিওনের!
০ দিন পূর্বে
12:01 pm
বাংলাদেশ-শ্রীলঙ্কা ম্যাচের টিকেটে ‘বাংলাদেশ’ বানানই ভুল, সমালোচনার ঝড়
১ দিন পূর্বে
11:32 pm
সভাপতির পদ না দেওয়ায় মসজিদের রাস্তা বন্ধ করে দিয়েছে এক প্রভাবশালী 
১ দিন পূর্বে
10:40 pm
রোটারী ক্লাব অব নাঙ্গলকোটের উদ্যোগে পথশিশুদের মাঝে শীতবস্ত্র বিতরণ
১ দিন পূর্বে
10:36 pm
নাঙ্গলকোটে জামায়াত নেতার মায়ের ইন্তেকাল
আধূনিক বাগমারার রুপকার আবু হেনা পছন্দের শীর্ষে

তানোর প্রতিনিধি: রাজশাহী-৪ সংসদীয় আসনটি বাগমারা-মোহনপুর দুটি উপজেলা নিয়ে গঠিত হলেও পরবর্তীতে মোহনপুরকে বাদ দিয়ে শুধুমাত্র বাগমারা উপজেলা নিয়ে রাজশাহী-৪ সংসদীয় আসন নির্ধারণ করা হয়। এদিকে নব্বই দশক পর্যন্ত বাগমারা উপজেলা ছিল অনেকটা অন্ধকারাচ্ছন্ন, দূর্গম, প্রত্যন্ত ও নিভৃত পল্লী এলাকা এখানে এক কিলোমিটার রাস্তাও পাকা ছিল না। কিন্তু নব্বই দশকে বর্ষিয়ান, মেধাবী, কর্মী ও জনবান্ধব রাজনৈতিক নেতা আবু হেনা বিএনপির মনোনয়নে পর পর দু’বার সংসদ সদস্য নির্বাচিত হবার পরে খুলে যায় বাগমারাবাসির ভাগ্য। তাঁর হাতে আধূনিক বাগমারা গড়ে উঠে। বিএনপির বর্ষিয়ান, প্রবীণ ও ত্যাগী নেতা (সাবেক) সাংসদ আবু হেনার হাতে প্রায় দুশ’ কিলোমিটার পাকা রাস্তা, ছোট-বড় মিলে প্রায় দুশ’টি ব্রিজ-কালভ্রাট, প্রায় শতভাগ বিদ্যুৎ ও স্কুল-কলেজ-মাদরাসাসহ অসংখ্য শিক্ষা প্রতিষ্ঠান গড়ে তোলার পাশপাশি হাজারো বেকারের কর্মসংস্থানের সুযোগ করে নিয়েছেন। এসব কারণে দলমত নির্বিশেষে বাগমারার সব শ্রেণী-পেশার মানুষের কাছে আবু হেনা এখানো সমান জনপ্রিয়। এলাকার উন্নয়নের স্বার্থে বাগমারাবাসি আবারো আবু হেনাকে এমপি হিসেবে দেখতে চাই।

জানা গেছে, বাগমারা উপজেলা বিএনপির তৃণমূল (সাবেক) এমপি আবু হেসাকে এবারো প্রার্থী হিসেবে ভোটের মাঠে চাই। স্থানীয় বিএনপির তৃণমূল (সাবেক) এমপি আবু হেসাকে সাম্ভব্য প্রার্থী ধরে নিয়ে ইতমধ্যে নির্বাচনী মাঠে জম্পেশ প্রচার-প্রচারণা ব্যস্ত সময় পার করছেন। তাঁর বিশাল কর্মী বাহিনী তার যোগ্যতা তুলে ধরে সাধারণে ভোটারদের দৌড়-গোড়ায় গিয়ে প্রচারণা করতে শুরু করেছে। জানা গেছে, ঢাকা বিশ্ববিদ্যালেয়র ছাত্র, সাবেক রাস্ট্রদ্রত, প্রকৃতির মহাসচিব, ভ্যাট-কাস্টম পরিচালক এক সময়ের তুখোড় ছাত্রনেতা, নির্বাচনী এলাকার বাসিন্দা, প্রবীণ ও মেধাবী নেতৃত্ব গুনে এবং এলাকার উন্নয়ন কর্মকান্ডের মাধ্যমে আবু হেনা ইতমধ্যে দলের চেয়ারপার্সন বেগম খালেদা জিয়ার আস্থা অর্জনে সক্ষম হয়েছেন। তাঁর নেতৃত্ব গুনে তাঁর নির্বাজনী এলাকায় একাধিকবার বিভিন্ন মন্ত্রণালয়ের মন্ত্রী দলীয় কর্মসূচি ও জনসভায় অংশগ্রহণ করেছে। সংশ্লিষ্ট নির্বাচনী এলাকার বিএনপির তৃণমূলের অভিমত, সাবেক সাংসদ আবু হেনা এখানো বাগমারা বিএনপির তৃণমূলে পচ্ছন্দের শীর্ষে রয়েছেন তাকে ঘিরে জমে উঠেছে বিএনপির তৃণমূলে রাজনীতির মাঠ। এসব বিবেচনায় মনোনয়ন দৌড়ে অন্যদের থেকে অনেক এগিয়ে রয়েছেন আবু হেনা। এছাড়াও আবু হেনার বিকল্প নতুন বা বহিরাগত কোনো প্রার্থীকে এই এলাকার সাধারণ মানুষ কখনই তাদের নেতা হিসেবে মেনে নিবে না এমন কথা নির্বাচনী এলাকার প্রায় প্রতিটি মানুষের মূখে মূখে প্রচার হচ্ছে।

সূত্র জানায়,রাজশাহী-৪ (বাগমারা-মোহনপুর) সংসদীয় আসনে তিনি দুইবার বিএনপির মনোনয়ন নিয়ে বিপুল ভোটের ব্যবধানে বিজয়ী হয়েছেন। পরবর্তীতে শুধুমাত্র বাগমার উপজেলাকে একটি আসন ঘোষণা করা হয়। বাগমারা ও মোহনপুরের শিক্ষা-স্বাস্থ্য, বিদ্যুৎ, সড়ক যোগাযোগ ও অবকাঠামো উন্নয়নের সিংহভাগ হয়েছে আবু হেনার হাতে। এছাড়াও তিনি রাজনৈতিক সহাবস্থান সৃষ্টি করায় তার সময়ে নির্বাচনী এলাকায় কোনো রাজনৈতিক হানাহানি ছিলনা। বিলাস ও প্রচার বিমূখ কর্মী-জনবান্ধব প্রবীণ এই রাজনৈতিক নেতা আবু হেনা এখানো বাগমারার সব শ্রেণী-পেশার মানুষের কাছে সমান জনপ্রিয়। বাগমারায় বিএনপির রাজনীতিতে এখানো আবু হেনার কোনো বিকল্প নাই। ফলে আবু হেসাকে ঘিরে নির্বাচনী এলাকায় বিএনপি ও সহযোগী সংগঠনের নেতাকর্মীদের মধ্যে দীর্ঘদিন বিরাজমান মতবিরোধ, মানঅভিমান ও ঐক্য প্রশ্নের বরফ গলতে শুরু করেছে। এখন তৃণমূলের নেতাকর্মীরাও এটা বুঝতে সক্ষম হয়েছেন পাওয়া-না পাওয়া নিয়ে তাদের মধ্যে মান-অভিমান থাকবে সেটাই স্বাভাবিক, আবার নির্বাচনী এলাকায় বিএনপির রাজনীতিতে সাবেক এমপি আবু হেনার কোনো বিকল্প নাই এটাও সত্য। এসব বিবেচনায় তৃণমূলের নেতা ও কর্মী-সমর্থকগণ ফের আবু হেনা মূখী হতে শুরু করেছে। বাগমারা বিএনপির রাজনীতিতে আবু হেনাকে ঘিরে দীর্ঢ়দিন পরে বিএনপির রাজনীতিতে ফের প্রাণচাঞ্চল্য ফিরে এসেছে। জানা গেছে, প্রবীণ, ত্যাগী ও মেধাবী নেতৃত্ব হিসেবে আবু হেনা নির্বাচনী এলাকার সাধারণ মানুষের মধ্যে একটি নিজস্ব ব্যক্তি ইমেজ ও অবস্থান গড়ে তোলেছেন। আবার বিএনপি বিরোধীরাও আবু হেনাকে শক্ত প্রতিপক্ষ ও হেভিওয়েট প্রার্থী হিসেবে শিকার করছে। আবু হেনার ওপর ভরসা ও আস্থা রেখেই বিএনপি এবং সহযোগী সংগঠনের নীতিনির্ধারক ও জৈষ্ঠ নেতারা তৃণমূলের সঙ্গে নিয়মিত যোগাযোগ, গণসংযোগ, বর্ধিত এবং কর্মীসভা করে ব্যস্ত সময় পার করছেন। ফলে দীর্ঘদিন পর নির্বাচনী এলাকায় বিএনপির নেতাকর্মী ও সমর্থকগন আবারও চাঙ্গা হয়েছে উঠেছে। রাজনীতিতে হয়েছে নাটকীয় পরিবর্তন দলীয় শক্তি দিন দিন ক্রমেই জোরদার হচ্ছে। আগামী জাতীয় সংসদ নির্বাচনকে সামনে রেখে বিএনপি ঐক্যবদ্ধ হওয়ায় তাদের রাজনীতিতে নাটকীয় পরিবর্তন ও ফিরেছে প্রাণচাঞ্চল্য সৃষ্টি হয়েছে গণজোয়ার। আবার প্রবীণ, ত্যাগী ও মেধাবী, রাজনৈতিক দূরদর্শীতা সম্পন্ন বিচক্ষন, কর্মী-জনবান্ধব রাজনৈতিক নেতা হিসেবে দলমত নির্বিশেষে সব শ্রেণী ও পেশার মানুষের কাছে এখানো সমান সমাদৃত আবু হেনা বলে একাধিক সূত্র নিশ্চিত করেছে। এসব বিবেচনায় বিএনপির তৃণমূল আবারো আবু হেনাকে প্রার্থী করার জোর দাবি তুলেছে।