Rz Rasel
০ দিন পূর্বে
5:12 pm
নীতিমালা লঙ্ঘন করে ফসলি জমিতে পুকুর খনন
০ দিন পূর্বে
5:11 pm
তানোরে পুলিশের নারী কেলেঙ্কারি, তোলপাড়!
০ দিন পূর্বে
5:03 pm
মুক্তির আগেই ইন্টারনেটে ফাঁস গুরলীনের বেডরুম দৃশ্য
০ দিন পূর্বে
5:02 pm
এবার সোশ্যাল মিডিয়ায় হট লুকে ক্যাটরিনা
০ দিন পূর্বে
4:47 pm
জাতীয় অনলাইন গণমাধ্যম সম্মেলনের সমাপনী
০ দিন পূর্বে
3:31 pm
জিয়া পরিবারকে নিয়ে প্রধানমন্ত্রীর বক্তব্য প্রত্যাহারের দাবি
০ দিন পূর্বে
2:29 pm
কুমিল্লায় নিয়ন্ত্রণ হারিয়ে গাছের সঙ্গে বাসের ধাক্কা: শিশুসহ নিহত ৪
০ দিন পূর্বে
12:01 am
মাঝারি থেকে ভারি বর্ষণের পূর্বাভাস সোমবার সকাল পর্যন্ত
১ দিন পূর্বে
9:53 pm
আইপিএল চলাকালীন সময় আন্তর্জাতিক ক্রিকেট বন্ধ রাখার প্রস্তাব ভারতের !
১ দিন পূর্বে
9:51 pm
কোয়ালিফায়ার ম্যাচে রিজার্ভ ডে না থাকায় ক্ষুব্ধ ক্রিকেটপ্রেমীরা !
১ দিন পূর্বে
9:28 pm
নিজ উদ্যোগেই কর দিচ্ছে কম বয়সীরা : অর্থমন্ত্রী
১ দিন পূর্বে
9:25 pm
সবাইকে নিয়মের কথা বলে নিজেই অনিয়ম করেন
১ দিন পূর্বে
9:19 pm
‘৯৯৯’ জরুরি সেবায় টোল ফ্রি সার্ভিস,উদ্বোধন করবেন জয়
১ দিন পূর্বে
9:18 pm
কলকাতায় ম্যারাডোনা
১ দিন পূর্বে
9:14 pm
মৌলিক অধিকার বাস্তবায়নের মাধ্যমে মানবাধিকার প্রতিষ্ঠা পাবে
১ দিন পূর্বে
9:04 pm
প্রেমের প্রস্তাব প্রত্যাখ্যান করায় কলেজ ছাত্রী ও বাবাকে মারধরের অভিযোগ,যুবক গ্রেফতার
১ দিন পূর্বে
8:57 pm
টেস্ট অধিনায়কত্ব হারালেন মুশফিক ; নতুন অধিনায়ক সাকিব
১ দিন পূর্বে
8:54 pm
বিমানে শ্লীলতাহানির শিকার ‘দঙ্গল কন্যা’ !
১ দিন পূর্বে
8:39 pm
ঢাকা-চট্টগ্রাম জেলা সিএনজি শ্রমিক ঐক্য পরিষদের ৮ দফা দাবিতে স্মারকলিপি পেশ
১ দিন পূর্বে
5:55 pm
বাংলাদেশ ইউনিভার্সিটির ব্যবসায় প্রশাসন বিভাগের নবীনবরণ ও বিদায় অনুষ্ঠান
১ দিন পূর্বে
5:49 pm
অপো এফ৫ ৬জিবি’র প্রি-বুকিং-এ আশাতীত সাফল্য
১ দিন পূর্বে
5:47 pm
আধূনিক বাগমারার রুপকার আবু হেনা পছন্দের শীর্ষে
১ দিন পূর্বে
5:43 pm
গোদাগাড়ীতে বিএসএফের গুলীতে দুই গরু ব্যবসায়ী নিহত
১ দিন পূর্বে
5:40 pm
লক্ষীপুরে মানবাধিকার দিবস পালিত
১ দিন পূর্বে
5:37 pm
আন্তর্জাতিক মানবাধিকার দিবসে সিরাজগঞ্জে জেলা বিএনপির মানববন্ধন
প্রয়োজনের অতিরিক্ত খাওয়ার অভ্যাস কমাবেন যে উপায়ে

ওজন কমাতে চাইলেও বেশীরভাগ ক্ষেত্রে সেটা আর হয়ে ওঠে না অনেকের। যার অন্যতম প্রধান কারণ বেশী খাওয়ার প্রবণতা এবং ইচ্ছাশক্তির অভাব। এই বেশী খাওয়ার প্রবণতা অথবা ওভার ইটিং টেন্ডেন্সির কারণে প্রথম কিছুদিন স্বাস্থ্যকর ও পরিমিত পরিমাণে খাবার খাওয়ার চেষ্টা করলেও সেটা বেশিদিন ধরে রাখা সম্ভব হয় না। যার ফলাফল ওজন পূর্বের মতোই থাকা।

কিন্তু কীভাবে এই বেশী খাবার প্রবণতা দূর করা সম্ভব হয় সেটা কী জানেন। জেনে নিন খুব দারুণ কিছু উপায় যা সাহায্য করবে অতিরিক্ত বেশী খাবার প্রবণতাকে কমিয়ে আনতে ও বাড়তি ওজন নিয়ন্ত্রণে নিয়ে আসতে।

১/ স্বাস্থ্যকর খাবার খাওয়ার অভ্যাস গড়ে তুলতে হবে

ওজন অতিরিক্ত হয়ে যাওয়ার অন্যতম কারণ হলো বেশি পরিমাণে প্রসেসড খাবার খাওয়া। প্রসেসড খাবার হলো চিপস, চানাচুর, মিষ্টিমিল্কশেইক ইত্যাদি। এই সকল খাবারে প্রচুর পরিমানে ক্যালরি থাকে। যে কারণে এই সকল খাবার খাওয়ার ফলে ওজন খুব দ্রুত বেড়ে যায়। তাই প্রথমেই চেষ্টা করতে হবে এই সকল খাবার খাদ্য তালিকা থেকে একেবারেই বাদ দিয়ে দিতে। এর পরিবর্তে ফল, বাদাম, সবজী, ডিম- এই সকল খাবার খাওয়ার অভ্যাস গড়ে তুলতে হবে।

২/ ধীরেসুস্থে এবং আনন্দ সহকারে খাবার খেতে হবে

কেউ যখন অনেক বেশী মানসিক চাপের মাঝে থাকে তখন ‘স্ট্রেস হরমোনস’ এর জন্য মেটাবলিজমের গতি অনেক কমে যায়। যে কারণে খাদ্য পরিপাকে সমস্যা দেখা দেয়। এছাড়াও, অনেক বেশী দ্রুত খাবার খেলে, খাওয়া অনেক বেশী হয়ে যায়। যে কারণে মস্তিষ্ক ২০ মিনিট সময় পর বুঝতে পারে যে পরিমাণের চাইতে বেশী খাবার খাওয়া হয়ে গেছে! তাই প্রতিবেলায় খাওয়ার সময় পরিমিত পরিমাণে খাবার খুব ধীরে সুস্থে এবং মনোযোগ দিয়ে খেতে হবে।

৩/ কখনোই সকালের নাস্তা খাওয়া বাদ দেওয়া যাবে না

বেশীরভাগ মানুষ সকালের নাস্তা একেবারেই খেতে চান না। তবে এই অভ্যাসটা স্বাস্থ্যের জন্যে খুবই ক্ষতিকর। কারণ, সকালে সঠিকভাবে নাস্তা না খাওয়ার ফলে সারাদিন ক্লান্তিবোধ হতে থাকে। এরই সাথে শরীরে অনেক বেশী খাবারের চাহিদা তৈরি হয় বলে খাওয়া বেশী হয়ে যায়। ৩০০০ মানুষের উপরে করা একটি গবেষণা থেকে দেখা গেছে, তারা ৭০ পাউন্ড ওজন কমিয়েছিলেন এবং সেটা ধরে রাখতে পেরেছিলেন টানা ছয় বছর পর্যন্ত। এই ৩০০০ মানুষ নিয়মমতো প্রতিদিন সকালে স্বাস্থ্যকর নাস্তা খেতেন।

৪/ কী খাচ্ছেন প্রতিদিন- একটি ডায়েরিতে লিখে রাখুন

সকাল থেকে শুরু করে একদম দিনের শেষ পর্যন্ত- সারাদিনে কি কি খাবার কতটুকু পরিমাণে খেলেন সেটা গুছিয়ে সুন্দরভাবে লিখে রাখুন। এতে করে সারাদিনে কি খাবার খেয়েছেন, কত ক্যালরি গ্রহণ করেছেন, কতগুলো খাবার স্বাস্থ্যকর ছিল এবং অস্বাস্থ্যকর ছিল- সকল কিছুই পরিষ্কারভাবে হিসাব করতে পারবেন। এতে করে, নিজেই বুঝতে পারবেন নিজের খাদ্যাভ্যাসে কী ধরণের পরিবর্তন আনা উচিৎ হবে আপনার।

৫/ পর্যাপ্ত পরিমাণ ঘুমানোর অভ্যাস করতে হবে

প্রতিদিন রাতে অন্তত আট ঘণ্টা নিরবিচ্ছিন্ন ভাবে ঘুমানোর অভ্যাস গড়ে তুলতে হবে। এতে করে খাওয়ার বাড়তি চাহিদা কমে যায় এবং ফ্যাট-রেগুলেটিং হরমোনগুলো স্বাভাবিক থাকে। গবেষণা দেখে জানা গেছে, খুব অল্প পরিমাণে রাতে ঘুমের ব্যাঘাত ইনসুলিন তৈরিতে বাঁধা সৃষ্টি করে। যার ফলে অবেসিটি, টাইপ-২ ডায়বেটিস এর মতো সমস্যাগুলো তৈরি হয়।

৬/ ছোট পাত্রে খাবার খাওয়ার অভ্যাস করুন

লেখাটি পড়ে মজার মনে হলেও এটা খাওয়ার অভ্যাসে অনেক বড় একটি পরিবর্তন আনতে সাহায্য করে এবং খাওয়ার পরিমাণ কমে যায় অনেকখানি। একটি বড় প্লেটে যে পরিমাণ ভাত নিলে অনেক কম বলে মনে হবে, সেই একই পরিমাণ ভাত একটি হাফ-প্লেটে নিলে অনেক বেশী বলে মনে হবে। যে কারণে, ছোট যে কোন পাত্রে খাওয়ার অভ্যাস গড়ে তুলতে পারলে খাবার খাওয়ার পরিমাণ কমে যাবে অনেকখানি।

৭/ নিয়মিত শরীরচর্চা করতে হবে

নিজের শারীরিক গঠন এবং ধরণ অনুযায়ী সঠিক শরীরচর্চা বাড়তি ওজন কমাতে, ওজন নিয়ন্ত্রণে রাখতে এবং অতিরিক্ত খাওয়ার ইচ্ছা কমাতে সাহায্য করে। প্রতিদিন অন্তত ৩০ মিনিট হাঁটার অভ্যাস করতে হবে। অনেকেই শুরুতে অনেক ভারী এবং কষ্টকর শরীরচর্চা শুরু করেন ওজন কমানোর জন্য। যেটাতে বেশীরভাগ ক্ষেত্রে হিতে বিপরীত হয়। তাই প্রথমে খুব সহজ কিছু শরীরচর্চা শুরু করতে হয়।

সূত্র: Mind Body Green , WebMD