Rz Rasel
০ দিন পূর্বে
6:08 pm
ঠাকুরগাঁওয়ে পুলিশপত্নীর নগ্ন ছবি ইন্টারনেটে দেওয়ার ভয় দেখিয়ে ৫০ হাজার টাকার চাঁদা দাবি\ গ্রেফতার-৩
০ দিন পূর্বে
6:04 pm
সিন্ডিকেট মুক্ত ছাত্রলীগ হবে জাতিরজনকের প্রকৃত ছাত্রলীগ
২ দিন পূর্বে
6:05 pm
রাবিতে স্থগিতকৃত দশম সমাবর্তন মার্চে
৩ দিন পূর্বে
11:56 pm
‘মৃত্তিকা প্রতিবন্ধীবান্ধব সাংবাদিকতা অ্যাওয়ার্ড’ পেলেন ভৈরবের সুমন মোল্লা
৩ দিন পূর্বে
11:48 pm
ঢাকা আন্তর্জাতিক বাণিজ্য মেলা ২০১৮-এ অপো এফ ৫ বিজয়ীদের নাম ঘোষণা
৩ দিন পূর্বে
11:43 pm
মোরেলগঞ্জে,শরণখোলায় কমিউনিটি ক্লিনিক কর্মীদের তিন দিনব্যাপী অবস্থান কর্মসূচি
৩ দিন পূর্বে
11:39 pm
শ্রীমঙ্গলে জাতীয় শিক্ষা সপ্তাহের সমাপনী ও পুরস্কার বিতরণ
৩ দিন পূর্বে
11:28 pm
তানোরে স্কুল ছাত্রীর আত্মহত্যা
৩ দিন পূর্বে
11:23 pm
তানোরে শিশুদের শীতবস্ত্র বিতরণ করলেন বিভাগীয় কমিশনার
৩ দিন পূর্বে
11:16 pm
বৈষম্যহীন শিক্ষা ব্যবস্থা ও অসাম্প্রদায়িক,গণতান্ত্রিক দেশ গড়ার কারিগর ছিলেন শহীদ আসাদ
৩ দিন পূর্বে
10:53 pm
প্রেমিকের সঙ্গে শারীরিক সম্পর্ক ইনস্টাগ্রামে লাইভ, তারপর…
৩ দিন পূর্বে
8:09 pm
এই কলগার্লের জন্যই নাকি পদচ্যুত হয়েছিলেন প্রধানমন্ত্রী
৩ দিন পূর্বে
8:07 pm
২০ প্রেতাত্মার সঙ্গে ‘যৌন সম্পর্ক’ এই ব্রিটিশ যুবতীর!
৩ দিন পূর্বে
7:40 pm
অন্তরঙ্গ সময়ে টিভির নেশায় বুঁদ প্রেমিকা, ফলাফল…!
৩ দিন পূর্বে
5:58 pm
মা হচ্ছেন প্রীতি জিনতা!
৩ দিন পূর্বে
5:33 pm
খরচ বাঁচাতে ৮ জোড়া প্যান্ট ও ১০ জামা পরে বিমানবন্দরে যুবক
৩ দিন পূর্বে
5:22 pm
‘বিএনপির কোনো নীতি আদর্শ নেই’
৩ দিন পূর্বে
5:19 pm
যে ৮টি উপকারে আসতে পারে ফিটকিরি
৩ দিন পূর্বে
5:17 pm
অমিতাভ ও মাধুরীদের সারিতে সানি লিওন
৩ দিন পূর্বে
5:10 pm
ভারত বিরাটের ওপর অতিরিক্ত নির্ভরশীল : রাবাদা
৩ দিন পূর্বে
5:08 pm
অবশেষে ঢেকে দেওয়া হল দীপিকার উন্মুক্ত পেট (ভিডিও)
৩ দিন পূর্বে
5:05 pm
আসামে ভূমিকম্পের আঘাত
৩ দিন পূর্বে
5:00 pm
রেডিওতে বাংরেজি বন্ধের নির্দেশ দিলেন তারানা
৩ দিন পূর্বে
4:50 pm
চলন্ত গাড়ির জানালার বাইরে টপলেস নারী! হঠাৎ…
৩ দিন পূর্বে
4:46 pm
বিশ্বে প্রথমবারের মতো চালু হলো পুতুলের যৌনপল্লী!(ভিডিও)
আর কোনো কনিকাকে হারাতে চাই না

editorial চাঁপাইনবাবগঞ্জ সদর উপজেলার মহিপুরে স্কুলছাত্রীকে কুপিয়ে হত্যার ঘটনা প্রমাণ করে বখাটেদের অত্যাচার এখন কোন পর্যায়ে পৌঁছেছে। এ ধরনের নির্মম, হৃদয়বিদারক ঘটনা কিছুতেই মেনে নেওয়া যায় না। ঘাতক আব্দুল মালেককে (২৮)  হাতেনাতে ধরে পুলিশে সোপর্দ করা হয়েছে। এখন দৃষ্টান্তমূলক শাস্তিই তার যোগ্য পাওনা। শুক্রবার সকালে এ মর্মান্তিক ঘটনাটি ঘটে। সদর উপজেলার দিয়াড় ধাইনগর গ্রামের লক্ষণ ঘোষের মেয়ে কনিকা রানী ঘোষ (১৪) ও তার অপর সহপাঠি তারিন আফরোজ (১৫),  তানজিমা আক্তার (১৪) এবং মরিয়ম আক্তার  স্থানীয় এক শিক্ষকের কাছে সকাল ৭টায়  প্রাইভেট পড়তে যায়। ৯টার দিকে প্রাইভেট শেষে বাড়ি ফেরার সময় বখাটে মালেক তাদের কুপিয়ে মারাত্মক যখম করে। এতে কনিকা রানী ঘোষ অতিরিক্ত রক্তক্ষরণের কারণে হাসপাতালে নেয়ার আগেই মারা যায়। অন্যদের অবস্থাও আশঙ্কাজনক। নিহত কনিকা রানীরা দুই বোন। কিছুদিন আগে বাবা মারা গেছেন। মামার কাছে থেকে সে পড়াশোনা করতো। কনিকা ছিল দশম শ্রেণির মেধাবী ছাত্রী। বিজ্ঞান নিয়ে পড়ছিল সে। অনেক স্বপ্ন ছিল তার। কিন্তু ঘাতকের নির্মম জিজ্ঞাংসা অকালে তার জীবনপ্রদীপ নিভিয়ে দিল। ঘাতক মালেক মাদকাসক্ত। মাদক সেবনের দায়ে ভ্রাম্যমাণ আদালতে তার সাজা হয়েছিল। সাজা খেটে বেরুনোর পরও তার চরিত্রে কোনো পরিবর্তন আসেনি। যার কারণে  একজন মেধাধী ছাত্রীকে অকালে পৃথিবী থেকে বিদায় নিতে হলো। আহত হলো আরো কয়েকজন। সমাজে এ ধরনের মালেকদের সংখ্যা কম নয়। এদের কারণে মেয়েরা ইভটিজিংসহ নানা রকমের নির্যাতনের শিকার হয়। এখন যখন তারা প্রাণ সংহারের কারণ হচ্ছে তখন বিষয়টি নিয়ে অত্যন্ত জরুরি ভাবে ভাবতে হবে। মালেকদের সংখ্যা যাতে আর বাড়তে না পারে সে ব্যাপারে প্রয়োজনীয় পদক্ষেপ নিতে হবে। শিক্ষামন্ত্রী নুরুল ইসলাম নাহিদ আহতদের দেখতে গিয়েছিলেন। তাদের চিকিৎসার ব্যাপারে সবকিছু সরকারকে করতে হবে। কনিকা রানীর অসহায় পরিবারের পাশেও দাঁড়াতে হবে। এ ধরনের মর্মান্তিক ঘটনার পুনরাবৃত্তি রোধে অপরাধীর দৃষ্টান্তমুলক শাস্তির পাশাপাশি ভাবতে হবে সামাজে  ঘাতক তৈরি হওয়ার কার্যকারণগুলো নিয়েও।